আগামী ৫ বছর দেড় কো’টি লো’ক কা’জ পাবেন রা’জ্যে, আ’শা’বা’দী তৃণমূল সরকার

একুশে বিধানসভা নির্বাচনের আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের বেকার যুবক-যুবতীদের উদ্দেশ্যে ঘোষণা করেছিলেন যে মমতা সরকার তৃতীয়বারের মতো রাজ্যে ক্ষমতায় এলেই রাজ্যবাসীকে ডবল ডবল চাকরি দেওয়া হবে। মমতা সরকার সরকার গঠনের পরেও প্রথমবার বিধানসভা বাজেট অধিবেশনে কর্মসংস্থানের উপর জোর দেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। বুধবার বিধানসভায় অসুস্থ অমিত মিত্রর পরিবর্তে বাজেট পেশ করলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আগামী পাঁচ বছরে রাজ্যে দেড় কোটি কর্মসংস্থান তৈরির ব্যাপারে দিলেন আশ্বাস।

তবে কর্মসংস্থানের জন্য অবশ্য আলাদা করে কোনো প্রকল্পের খরচ বাবদ অর্থ বরাদ্দ করেনি সরকার। রাজ্যে কর্মসংস্থান নিয়ে বারংবার বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে মমতা সরকারকে। চলতি বছরের বিধানসভা নির্বাচনের আগে সমালোচকদের মুখ বন্ধ করার উদ্দেশ্যে ডবল ডবল চাকরির প্রতিশ্রুতি দেন মুখ্যমন্ত্রী। নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশের সময় মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন যে আগামী ৫ বছরে তার সরকার দেড় কোটি কর্মসংস্থানের পরিকল্পনা নিয়েছে।

বাজেট বক্তৃতায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় আবার সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরলেন। অবশ্য এই দেড় কোটি কর্মসংস্থান কিভাবে এবং কোন খাতে হবে, সে সম্পর্কে কিছু জানাননি পার্থ চট্টোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, রঘুনাথপুরে ৭২ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ হয়েছে। এতে প্রায় দুই থেকে আড়াই লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এছাড়াও সিলিকন ভ্যালিতেও ১১ হাজার কোটির বিনিয়োগ হয়েছে বলে জানাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে আগামী ৫ বছরে ১০ লক্ষ স্বয়ম্ভর গোষ্ঠী তৈরি হবে রাজ্যে। যা রাজ্য কর্মসংস্থানের নতুন পথ খুলে দেবে বলেই আশাবাদী রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য অনুসারে, আগামী দিনে রাজ্যজুড়ে সার্বিক বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। যা কর্মসংস্থানের পথের দিশারী হবে।