তিরুপতি, ভারতের সবথেকে ধনী মন্দির, ছাঁটাই হলো 1300 কর্মী, নিন্দার ঝড়

গোটা দেশ জুড়ে করোনা আতঙ্ক। করোনা মোকাবিলার জন্য ১৭ মে পর্যন্ত লকডাউন বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। লকডাউনের ফলে দিন আনি দিন খাই গরিব মানুষদের সবচেয়ে বেশি সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে ভারতের সবচেয়ে ধনী মন্দির তিরুপতিতে ছাঁটাই করা হল ১৩০০ অস্থায়ী কর্মীকে। মন্দির কমিটির নেওয়া এই সিদ্ধান্তে ইতিমধ্যেই বিতর্ক শুরু হয়ে গিয়েছে। অন্ধ্রপ্রদেশের চিতোর জেলায় অবস্থিত তিরুপতি মন্দির।

এই মন্দিরে ভক্তদের দেওয়া প্রণামী থেকেই কোটি কোটি টাকা ওঠে। এই আর্থিক বছরেও তিরুপতি মন্দির ট্রাস্টের বাজেট ৩৩০৯ কোটি টাকা এবং এই মন্দির ট্রাস্টের তরফেই ১ মে থেকে প্রায় ১৩০০ সাফাইকর্মীকে কাজে আসতে নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে। চুক্তি বাতিল করে দেওয়ার পর সাফাইকর্মীরা নতুন করে মন্দির কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। কিন্তু তাঁদের আবেদনে কোনও সাড়া মেলেনি।

তবে মন্দির ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ওয়াইভি রেড্ডি বলেছেন, এই বিষয়টি তাঁদের নজরে এসেছে। তাঁরা দেখছেন, কীভাবে ওই কর্মীদের সাহায্য করা যায়। তিনি আরও বলেছেন, এই চুক্তিভিত্তিক সাফাইকর্মী ছাড়াও যাঁরা নিয়মিত কাজ করতেন, তাঁদেরও লকডাউনের পর থেকে আর কোনও কাজ দেওয়া হয়নি।

এরপর সমস্ত শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে বিষয়টির নিন্দা করা হয়েছে। স্থানীয় সিটু নেতৃত্ব জানিয়েছেন, মন্দিরের কর্মীরা নিজেদের জীবন বিপন্ন করে ভক্তদের সুরক্ষার জন্য কাজ করে গিয়েছেন। কিন্তু আজ এই বিপদের দিনে তাঁদের কাজ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল। মন্দির সূত্রে জানা গিয়েছে, একটি সংস্থার সঙ্গে চুক্তির ভিত্তিতে তাঁরা সাফাইকর্মীদের কাজে রেখেছিলেন। কিন্তু ৩০ এপ্রিলের পর আর সেই চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়নি।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন