চিনকে বড় ধাক্কা ইসলামাবাদের, এবার বন্ধু পাকিস্তানেও নিষিদ্ধ হচ্ছে TikTok

ভারত, অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকার পর এবার চীনের বন্ধুরাষ্ট্র পাকিস্তানেও বন্ধ হচ্ছে “টিক টক” এর ব্যবহার। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, “টিক টক” এ আপত্তিকর কনটেন্ট আছে বলে বেশ কিছুদিন ধরেই অভিযোগ জানাচ্ছিল পাক প্রশাসন। জনপ্রিয় এই ভিডিও মেকিং অ্যাপে বেশকিছু আপত্তিকর ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে বলে বহুদিন ধরেই অভিযোগ জানাচ্ছিলেন পাকিস্তানের “টিকটক” ব্যবহারকারীরা।

পাক প্রশাসনের তরফ থেকে প্রথমে এ বিষয়ে চিনা সংস্থার কাছে অভিযোগ জানিয়ে তাদেরকে সতর্ক করা হয়। তবে, অভিযোগ জানানোর পরেও আপত্তিকর ভিডিও গুলিকে সরাতে রাজি হয়নি “টিকটক” সংস্থা। তাই পাক প্রশাসনের তরফ থেকে বন্ধুরাষ্ট্র চীনের এই ভিডিও মেকিং অ্যাপের ব্যবহার সেদেশে সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার, পাকিস্তানের টেলিকমিউনিকেশন মন্ত্রকের তরফ থেকে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে এই সিদ্ধান্তের খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

একটি সরকারি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, গত জুলাই মাসে পাকিস্তানের টেলিকমিউনিকেশন মন্ত্রকের তরফ থেকে সংশ্লিষ্ট সংস্থার কাছে এ সম্পর্কে অভিযোগ জানানো হয়। তবে, পাকিস্তানের দাবিকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। তাই আপাতত পাকিস্তানের মাটিতে টিকটক ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তবে ভবিষ্যতে যদি এই ধরনের আপত্তিকর এবং অশ্লীল কনটেন্ট সরানোর ব্যবস্থা করা হয়, তাহলে “টিকটক” এর উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া যেতে পারে।

পাকিস্তানের এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অবশ্য “টিকটক” কোম্পানির দাবি ২০১৯ সালের দ্বিতীয় ভাগেই এই ধরনের ৩৭ লক্ষ আপত্তিকর ভিডিও ডিলিট করা হয়েছে। কিন্তু তাতেও সন্তুষ্ট নয় পাক প্রশাসন। নতুন করে আবারো ভিডিও ডিলিট করার শর্ত রাখা হয়েছে। ভারত, অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকার পর এবার বন্ধুরাষ্ট্রেও বাধার সম্মুখীন হয়ে রীতিমতো প্রমাদ গুনছে চিনা সংস্থা “টিক টক”।