টিকটকে তালা লাগিয়েছে সরকার, তরুণ প্রজন্মকে আশা দেখাচ্ছে “চিঙ্গারী”, হু হু করে হচ্ছে ডাউনলোড

যবে থেকে চীন এবং ভারতবর্ষের সীমান্ত উত্তপ্ত হয়ে উঠছে তখন থেকেই একে একে ভারতীয়রা চীনা পণ্য বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। স্মার্টফোন থেকে চিনা অ্যাপ পর্যন্ত বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।আজ থেকে ৫৯ চিনা অ্যাপ ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হলো। আজকের সিদ্ধান্তে জারি করার কয়েকদিন আগে থেকেই বহু ভারতীয়রা নিজে নিজের মোবাইল থেকে চিনা অ্যাপ আনইন্সটল করে দেন। চিনা অ্যাপ বয়কট এর সাথে ভারতীয় অ্যাপ ব্যবহারের পর্ব শুরু হয়েছে।

টিকটক অ্যাপের পরিবর্তে ভারতীয়রা শুরু করেছেন ‘চিঙ্গারি’ নামক অ্যাপের ব্যবহার। ২০১৮ সালের নভেম্বরে লঞ্চ করে চিঙ্গারি অ্যাপ। এই অ্যাপের প্রতিষ্ঠাতাদের রয়েছেন এক বাঙালিও। এখন পর্যন্ত প্রায় ২.৫ মিলিয়ন, অর্থাৎ ২৫ লক্ষ বার ডাউনলোড করা হয়েছে এই অ্যাপটিকে। এতদিন পর্যন্ত এই অ্যাপটি জনপ্রিয়তা লাভ করতে পারেনি। তবে টিকটক অ্যাপ এর নিষেধাজ্ঞা জারী করার পরে এই অ্যাপ হয়তো জনপ্রিয়তার শীর্ষে স্থান লাভ করতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

টিক টক অ্যাপ এর পরিপূরক হিসেবে এই অ্যাপটি ব্যবহার করা যেতে পারে। ছোট ছোট ভিডিও করে এই অ্যাপের শেয়ার করা যেতে পারে। মাত্র ১০ দিনের মধ্যে ৫ লক্ষ ৫০ হাজার বার ডাউনলোড হয়েছে এই অ্যাপটিকে। চিঙ্গারি অ্যাপেল ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ভিত্তিতে ইউজারদের টাকা দেওয়া হয়। আপলোড করা প্রতিটি ভিডিওর জন্য ভিউ প্রতি পয়েন্ট পেতে পারে ব্যবহারকারীরা যা অর্থের বিনিময়ে জমা করা হবে ব্যাঙ্ক একাউন্টে।