দেশজুড়ে অশনিসংকেত, ২০২৪-এত আগে ক’রোনার টিকা পাওয়া সম্ভব নয়, বার্তা দিলো সিরাম ইনস্টিটিউট

করোনা মহামারী বিশ্বজুড়ে ভয়ঙ্কর ত্রাসের সৃষ্টি করেছে। প্রায় প্রতিদিনই নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা নতুন নতুন রেকর্ড গড়ছে। এই পরিস্থিতিতে বিশ্ববাসী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন, কবে এই মহামারীর হাত থেকে মুক্তি মিলবে! উপযুক্ত প্রতিষেধক বাজারে আসবে। বিগত প্রায় সাত-আট মাস ধরে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের বিজ্ঞানীরা দিনরাত এক করে নিরলস গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন করোনা ভ্যাকসিনের উপর।

এর মধ্যে বহু ভ্যাকসিনই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অন্তিম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। এমতাবস্থায় রাশিয়া, চীনের মতো দেশগুলি চলতি মাসের শেষের দিকেই তাদের আবিষ্কৃত করোনা প্রতিরোধী ভ্যাকসিন বাজারে আনার দাবি করছে। তবে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি যাই দাবি করুক, সম্প্রতি কিছুটা হলেও নিরাশা জনক সংবাদ শোনালো ভারতের সর্ববৃহৎ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউট।

সেরাম ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা আদর পুনাওয়ালা সম্প্রতি জানিয়েছেন, পৃথিবীর প্রত্যেকটি মানুষের জন্য করোনা প্রতিরোধী ভ্যাকসিন পেতে গেলে এখনও অন্তত পক্ষে ২০২৪ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তার দাবি, এখনই পৃথিবীর প্রত্যেকটি মানুষের জন্য ভ্যাকসিন প্রস্তুত করার মত পরিকাঠামো নেই বিশ্বের ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা গুলির। তিনি আরো জানিয়েছেন, কম সময়ের মধ্যে সারা বিশ্বের মানুষের জন্য ওষুধ প্রস্তুত করার জন্য যে উৎপাদন ক্ষমতার প্রয়োজন, তার যথেষ্ট অভাব রয়েছে।

তিনি আরো জানিয়েছেন, হাম বা রোটাভাইরাসের ক্ষেত্রে যেমন সংক্রমণ থেকে পুরোপুরি নিষ্কৃতি পেতে দুটি ডোজের প্রতিষেধক প্রয়োজন হতো, করোনার ক্ষেত্রেও তা প্রযোজ্য। অতএব মহামারির হাত থেকে মুক্তি পেতে এই মুহূর্তে প্রায় ১৫০০ কোটি ভ্যাকসিন প্রয়োজন। এই বিপুল পরিমাণে ভ্যাকসিন চলতি বছরের শেষে বা আগামী বছরের গোড়ার দিকে পাওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। ভারতের জনসংখ্যা যেখানে ১৩০ কোটি, সেখানে আপাতত ৪০ কোটি ভ্যাকসিন প্রস্তুত করতে পারবে সেরাম ইনস্টিটিউট, বলেই জানিয়েছেন অধিকর্তা।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন

/p>