এ বছর শনি জয়ন্তীতে রয়েছে বি’শে’ষ যো’গ! কি ভাবে খু’শি করবেন শনি মহারাজকে?

শনি জয়ন্তী আগামী ৩০ মে সোমবার পালিত হবে। সেদিন শনি জয়ন্তীর পাশাপাশি সুকর্ম যোগ ও সর্বার্থ সিদ্ধি যোগ গঠিত হবে। তার সঙ্গে এই দিনটিকে সোমবতী অমাবস্যাও বলা হয়ে থাকে। শনি জয়ন্তীতে শনিদেবকে প্রসন্ন করার জন্য কী কী করবেন তা জেনে নিন এখানে।

সূর্য-পুত্র শনির সাড়ে সাতি ও ধাইয়ার প্রভাব কাটাতে শনিকে প্রসন্ন করা খুব জরুরি। সেই কারণে প্রতি শনিবার শনি মন্দিরগুলির বাইরে ভিড় উপচে পড়ে।

পুরাণ অনুসারে জৈষ্ঠ্য মাসের কৃষ্ণপক্ষের অমাবস্যা তিথিতেই জন্ম হয় শনিদেবের। তাঁর বাবা হলেন সূর্য ও মায়ের নাম ছায়াদেবী। শনি জয়ন্তীকে সোমবতী অমাবস্যাও বলা হয়ে থাকে।

আরো পড়ুন: আজ কি বলছে আবহাওয়া দ’প্ত’র? কলকাতাতে বৃষ্টির সম্ভাবনা কতটা?

সেদিন সাবিত্রী ব্রতও পালন করা হয়। এই বছর জৈষ্ঠ্য মাসের কৃষ্ণ পক্ষের অমাবস্যা তিথি শুরু হচ্ছে ২৯ মে রবিবার বেলা ২.৫৪ মিনিট থেকে। ৩০ মে সোমবার বিকেল ৪.৫৯ মিনিট পর্যন্ত থাকবে অমাবস্যা তিথি। সেদিন শনি জয়ন্তীর পাশাপাশি সুকর্ম যোগ রয়েছে, তার পাশাপাশি সকালে রয়েছে সর্বার্থ সিদ্ধি যোগ।

এই শুভ যোগ যে কোনও শুভ কাজ করার জন্য অত্যন্ত ভালো। এই সময় যে কোনও শুভ কাজের ভালো ফল লাভ করা যায়। একই সঙ্গে সেদিন গঠিত হবে অভিজিত্‍ মুহূর্ত, যা শনির পুজো করার জন্য খুবই ভালো। ভালো ফল লাভ করা যায়। একই সঙ্গে সেদিন গঠিত হবে অভিজিত্‍ মুহূর্ত, যা শনির পুজো করার জন্য খুবই ভালো।

১. ওম শনিশ্চরায় নমহঃ
২. ওম প্রাম প্রেম প্রোস: শনিশ্চরায় নমহঃ

শনি জয়ন্তীতে শনিদেবের আরাধানা করার জন্য এই মন্ত্রগুলি পাঠ করুন। এই মন্ত্রগুলি পাঠ করে শনির আরাধনা করলে সব পাপ ধুয়ে যায় বলে বিশ্বাস। এর ফলে পরিবারে শান্তি আসে, ব্যবসায় শ্রীবৃদ্ধি লাভ করা যায় এবং অর্থলাভ হয়। শনির পুজো করলে জীবনের সব দুঃখ কষ্ট দূর করা যায় বলে ধর্মীয় বিশ্বাস।

শনি জয়ন্তীতে শনি চালিসা পাঠ করেও শুভ ফল লাভ করা যায়। এদিন কোনও শনি মন্দিরে গিয়ে সর্ষের তেলের প্রদীপ জ্বালান। এছাড়া কালো ছাতা, কালো জুতো কালো কাপড় ও কালো তিল এদিন দান করা অত্যন্ত শুভ।