বি’রো’ধী দ’ল’নে’তা’র দা’য়ি’ত্ব নি’য়ে’ই যা বললেন শুভেন্দু অধিকারী

একুশের নির্বাচনী ফলাফল হোক কিংবা বিজেপির তরফ থেকে দলনেতার নির্বাচন, সবেতেই এগিয়ে বিজেপির বর্তমান হেভিওয়েট নেতা শুভেন্দু অধিকারী। বিশেষত নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারানোর পর থেকেই তার প্রতি দলের প্রত্যাশা আরও বেড়ে গিয়েছে। বিজেপি দল নেতা হওয়ার লড়াইয়ে শুভেন্দু অধিকারীকে টেক্কা দিচ্ছিলেন মুকুল রায়। তবে শেষমেষ শুভেন্দু অধিকারীর পাল্লাই ভারি হয়ে ওঠে।

প্রসঙ্গত দলের এই সিদ্ধান্তের পর পরই সাংবাদিকদের সামনে বক্তব্য রাখেন শুভেন্দু অধিকারী। নিজের বিধানসভা বয়কটের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন তিনি। সংবাদমাধ্যমের সামনে শুভেন্দু বলেন, বিজেপি বিধায়কেরা সকলেই বিধানসভায় অংশগ্রহণ করবেন। তারা সাধারণ মানুষের দাবি সমবেতভাবে বিধানসভায় তুলে ধরবেন।

প্রসঙ্গত বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ইতিপূর্বে জানিয়েছিলেন যে রাজ্যজুড়ে তৃণমূল যেভাবে হিংসা ছড়াচ্ছে তার প্রতিবাদ স্বরূপ বিজেপি বিধায়কেরা বিধানসভা বয়কট করবেন। রাজ্যে হিংসা না থামলে বিজেপির কোন বিধায়ক বিধানসভায় অংশগ্রহণ করবেন না বলে জানিয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষের সেই বক্তব্য কার্যত খারিজ করে দিচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দু এদিন বলেন, বিধানসভার স্পিকার একটি আনুষ্ঠানিকতা মাত্র। রাজ্যের প্রতিটি প্রান্তে বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা আক্রান্ত হচ্ছেন। তাই সেই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে বিধায়কদের সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলার কোনো মানে হয়না। ঠিক সেই কারণেই রাজ্য সভাপতির কথা শুনে তিনি বিধানসভায় যাননি বলে জানিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী।