এটিই হলো পৃথিবীর সবথেকে দামি গাছ, মাত্র ১ কাটা জমিতে চাষ করলেই কোটিপতি

এমন একটি গাছ যা গাছ চাষ করলে আপনি লাভবান হবেন কিন্তু সমস্যা হল এই গাছ যদি আপনি কি চাষ করতে চান তাহলে খরচ পড়বে বিশাল। এই গাছ কিনতে গেলে প্রত্যেকটি গাছের দাম পড়বে ৫০০ টাকা করে এই গাছটির বৃক্ষ রোপন করতে প্রায় ১২ বছর সময় লেগে থাকে। প্রথম দিকে কোনরকম গন্ধই আপনি পাবেন না এই গাছ থেকে। গাছ দাম হওয়ার জন্য চুরি হওয়ার ভয় থাকে।

এই গাছটি হলো চন্দন গাছ যা শুধুমাত্র চাষ করে থেমে থাকা যাবেনা এই গাছের সঙ্গে আরও একটি গাছ চাষ করতে হবে সেটা হল হোস্ট এবং আপনি যখন চন্দন গাছের চাষ করবেন তেমনি এই গাছটিকে চাষ করতে হবে। দুটি গাছকেই সমানভাবে যত্ন করে বেড়ে তুলতে হবে যদিও হোস্ট গাছ নষ্ট হয়ে যায় তাহলে দেখবেন চন্দন গাছ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

চন্দন গাছ চাষ করার ক্ষেত্রে খুব একটা বেশি জলের দরকার নেই। সুতরাং যে জমি ঢালু অর্থাৎ জল জমে না সেই জমিতেই চন্দন গাছ চাষ করা প্রয়োজন। চন্দন চাষ করতে মিনিমাম ৫ থেকে ৪০ ডিগ্রি উষ্ণতা দরকার । এই কাজ যখন বৃক্ষ হয় তখন প্রায় ১৫-২০ কেজি চন্দন গাছের থেকে পাওয়া যাবে যা বিক্রি করলে প্রায় ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা আয় করা সম্ভব হয়ে থাকে।

এই গাছ বিদেশে কোনরকম রফতানি করা হয় না এই গাছ শুধুমাত্র সরকারের কাছে বিক্রি করা যাবে এবং সরকারি শুধুমাত্র পারবে বিদেশে এই গাছ রপ্তানি করে। যদি কেউ এক একর জমিতে এই চন্দন গাছ চাষ করার কথা ভাবে তাহলে তার প্রায় তার লাভ হতে পারে প্রায় ৩০ থেকে ৩২ কোটি টাকা।

এই গাছ চাষ করেছেন এক হরিয়ানার কৃষক এবং তিনি বলেছেন যে, চন্দন গাছ চাষ করা বেশ লাভজনক এবং সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। চন্দন স্বাভাবিকভাবেই একদিকে যেমন সুগন্ধি একটি তেমনি পূজা-অর্চনা বিভিন্ন উৎসবে এই চন্দন সকলের একটি প্রয়োজনীয় বস্তু ।আর এই চন্দন হলো এমন একটি গাছ যা পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে বেশি দামি।