এভাবেও প্রেম নিবেদন! জিরাফকে হত্যা করে হৃদপিন্ড প্রেমিককে উপহার যুবতীর

ঈশ্বর যখন মানুষ কে তৈরি করেছিলেন তখন তাকে এমন ভাবে তৈরি করেছিলেন যাতে তাকে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জীব হিসেবে গণ্য করা যায়। তার প্রত্যেকটি কার্যকলাপ প্রত্যেক জীবজন্তুর থেকে এগিয়ে থাকে অনেক উপরে। তার মান ও হুশ দুটোই আছে বলে তাকে বলা হয় মানুষ। তবে যতদিন এই হচ্ছে মানুষ আস্তে আস্তে অমানুষে পরিণত হয়ে যাচ্ছে। পৃথিবীর এবং পরিবেশের উপর তার অকথ্য অত্যাচার তাতে সবার থেকে নিম্নে নামিয়ে দিচ্ছে।

Chief Jastice (@niallmarinus) | Twitter

মানুষের এমন কিছু কার্যকলাপ যা সহজে তাকে ঘৃণ্য প্রানির থেকেও নিচে নামিয়ে দেয়। গতবছর গর্ভবতী হাতি কে হত্যা করার ঘটনা আমরা সকলে মেনে নিতে পারিনি, কোথাও যেন নিজেকে মানুষ হিসেবে পরিচয় দিতে ঘেন্না করেছিল আমাদের।

ঠিক তেমনি আরো একটি নিষ্ঠুর ঘটনা আমাদের সকলের সামনে উঠে এলো। স্বামীকে ভ্যালেন্টাইন্স ডের গিফট দেওয়ার জন্য নৃশংস কাজটি করে ফেললেন একজন মহিলা।স্বামীকে তিনি ভ্যালেন্টাইন্স ডের জন্য হৃদপিণ্ড দিতে চাইছিলেন। না, আমরা যেমন হৃদপিণ্ড দিয়ে থাকি, ঠিক সেইরকম কোন হৃদপিণ্ড নয়।

আসল জিরাফের শরীর থেকে খুলে নিয়ে হৃদপিণ্ড উপহার দিলেন তিনি তার স্বামীকে। হতবাক হয়ে গেলেও কথাটা একেবারেই সত্যি। আস্ত একটি জিরাফকে হত্যা করে তার শরীর কেটে তার দেহ থেকে হৃদপিণ্ড খুবলে বার করে নিয়ে এলেন সেই মহিলা।ভালোবাসার নজির হিসেবে তা তুলে ধরে নিজের স্বামীর হাতে। শুধু তাই নয়,তার এই নৃশংস কার্যকলাপ নিজেই ছবি তুলে শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।Merelize Van Der Merwe নামে একজন ৩২ বছরের মহিলা করে ফেললেন এই কাজ।

তবে এ প্রথমবার নয়, এর আগেও চিতাবাঘ, সিংহ এবং হাতিসহ আরো পাঁচশোর বেশি পশু শিকার করেছেন এই মহিলা। এটা কিন্তু বিন্দুমাত্র আফসোস নেই তার। বরং সকলের সামনে তিনি জানিয়েছেন, এমন কাজ ভবিষ্যতেও তিনি করবেন। তাকে আটকানোর ক্ষমতা কারোর নেই।

তবে ইতিমধ্যেই ফেসবুকে উঠেছে এই মহিলার শাস্তির দাবি। শুধুমাত্র মনোরঞ্জন করার জন্য এভাবে আস্ত একটি প্রাণী কে মেরে ফেলা, রীতিমতো অপরাধের মধ্যে পড়ে। তাই অবিলম্বে তার শাস্তি দাবি তুলেছেন বহু মানুষ। কিন্তু এখনও পর্যন্ত তার কৃতকর্মের শাস্তির খবর জানা যায়নি। হয়তো ভবিষ্যতেও জানা যাবে না।