এই ওষুধ ক’রোনায় সংকটজনক রোগীর প্রাণ বাঁচাতে পারে, জানাল WHO

আশার খবর শোনালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এমনিতেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওপরে বিভিন্ন দেশ ক্ষুব্ধ তার মধ্যে আমেরিকা অন্যতম। আর এই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাই এক দারুণ আশার বাণী শোনালো করোনার ওষুধ নিয়ে‌। তারা জানালো স্টেরয়েড সংক্রান্ত ওষুধ ব্যবহার করলেই নাকি সঙ্কটাপন্ন রোগীকেও বাঁচানো সম্ভব। আসলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফ থেকে যে নতুন গাইড লাইন প্রকাশ করেছে, সেখানেই বলা হয়েছে কর্টিকোস্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ ব্যবহার করলেই সহজেই করোনার সঙ্কটাপন্ন রোগীকেও ঠিক করে দেওয়া যাবে, এমনকি মৃত্যুর হার কমে যাবে ২০% এর মতো।

ওষুধের নাম ডেক্সামেথাজোন, দেখা যাচ্ছে একেবারে ক্রিটিকাল পরিস্হিতিতে থাকা রোগীকেও একেবারে যমের হাত থেকে ফিরিয়ে আনার ক্ষমতা রাখে এই ওষুধ। এটাকে ব্রক্ষাস্ত্র বললেও ক্ষতি হবে না কিন্তু। এই নিয়ে বিজ্ঞানীদের বিভিন্ন মত রয়েছে, কেউ বলছে এই ওষুধের মাধ্যমে এক তৃতীয়াংশ মানুষ ভালো হয়ে যাচ্ছে। তবে অতিরিক্ত প্রয়োগ মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এই ওষুধ নিয়ে সম্প্রতি অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা গবেষণা করছে। এই গবেষণাতে সবুজ সংকেত দিয়েছে হুঁ, কারণ হুঁ জানিয়েছে তিন ধরনের কর্টিকোস্টেরয়েড দিয়ে এই ট্রায়াল করা হয়েছে।

যার ফলে দেখা যাচ্ছে একেবারে মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে ফিরছে রোগীরা। যারা এখানে ভেন্টিলেটরের মধ্যে থাকছে তাদের মধ্যে উন্নতি দেখা যাচ্ছে। মিথাইলপ্রেডনিজোলোন, ডেক্সামেথাজোন, হাইড্রকর্টিজোন এইসব ব্যবহার করেই ইতিবাচক ফল পাওয়া গেছে। এই নিয়ে জেনেট ডিয়াজ, তিনি বলেছেন, আসলে ৬৮% কোভিড রোগী এই কর্টিকোস্টেরয়েডে সুস্থ হয়েছে, সাথে ১০০০ জনের মধ্যে ৮৭ জন সংকটজনক অবস্হায় ছিল তারা এখন সুস্থ। এতেই স্পষ্ট করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা,তারা বলেছে খুব সহজেই এই কাজ করা সম্ভব, সংকটজনক রোগীর ওপরে প্রয়োগ করে।