এই ৪ রাশির মেয়েরা নিজের রাগকে নি’য়’ন্ত্র’ণ করতে পা’রে না!

জ্যোতিষশাস্ত্র মতে আমাদের রাশি চক্রের সংখ্যা টোটাল ১২ টি রাশি আছে। আর প্রতিটা রাশির গতি প্রকৃতি ভিন্ন। প্রত্যেক রাশির একটি করে নিজস্ব অধিপতি গ্রহ রয়েছে। আর সেই গ্রহের কারণেই ওই রাশির জাতকদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নির্ভর করে।

ঠিক তেমনি কিছু রাশি রয়েছে যাদের ওপর কিছু গ্রহ থাকার জন্য তাদের মাথায় রাগ উঠে গেলে কিছুতেই কমতে চায় না। স্থান কাল পাত্র কিছুই জ্ঞান করে না তাঁরা। আর সেই গ্রহ গুলো হলো যথাক্রমে – মঙ্গল, রাহু ও কেতু, শনি। এই গ্রহ গুলো যে রশিতে থাকে সেই রাশির ব্যাক্তিদের রাগ অন্যদের তুলনায় একটু বেশি হয়। যেমন –

মেষ :- মেষ রাশির জাতক ও জাতিকাদের ওপর মঙ্গলের প্রভাব রয়েছে। মঙ্গলকে উগ্র গ্রহ বলা হয়। আর এই রশিতে মঙ্গলের প্রভাব থাকার জন্য এই রাশির মেয়েরা অল্পেই রেগে যায়। আর তাই এইসব মেয়েদের কষ্ঠিতে যদি মঙ্গল অশুভ অবস্থায় থাকে তাহলে সেই মেয়ের সাংসারিক জীবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

আরো পড়ুন: পুজোর গান নিয়ে হা’জি’র হলেন সাংসদ মিমি চক্রবর্তী, ভিডিও ভাইরাল

কর্কট :- এই রাশির মেয়েরা এমনিতে একটু মুখচোরা প্রকৃতির হয়। এরা রেগে গেলে রাগ কন্ট্রোল করতে পারে না। আবার সহজে প্রকাশ করতেও পারে না। তাই এরা নিজের ভিতর ভিতর মানসিক অশান্তির মধ্যে থাকে।

মকর :- মকর রাশির অধিপতি গ্রহ হলো শনি। আর শনি দেবকে আমরা সকলেই কর্মফল দাতা বলেই জানি। তাই এই রাশির জাতকদের সত্যি কথা মুখের ওপর বলতে কোনো আটকায় না। সবসময় সৎ পথে থাকেন, অন্যায় একেবারেই পশ্রয় দেন না এই রাশির জাতিকারা। তবে কোনো কারণে রেগে গেলে খুব ভয়ংকর হয়ে যায় থামানো। স্থান কাল পাত্র সব ভুলে যান।

কুম্ভ :- এই রাশির জাতকেরা এতটাই রাগী হয় যে এরা নিজেদের ক্ষতি নিজেরাই করে ফেলে। আর এতে মানসিকভাবে ভেঙে পড়তেও দেখা যায়। আর এদের এত রাগের কারনে এদের সংসার সুখের হয়না।