নীরব মোদিকে ভারতে ফেরাতে আর রইলো না বাধা, ব্রিটিশ সরকারের সবুজ সংকেত

পিএনবি কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত নীরব মোদির প্রত্যাবর্তনে অবশেষে সবুজ সংকেত পেয়ে গেল ভারত। ব্রিটিশ আদালতের অনুমতি দেবার পর সে দেশের সরকার কোটি কোটি টাকার ঋণ খেলাপিতে অভিযুক্ত এই অলংকার ব্যবসায়ীকে ভারতে প্রত্যাবর্তন করার অনুমতি দিলেন। অর্থাৎ এবার সিবিআই চাইলেই নিরব মোদী কে দেশে ফেরাতে পারবেন। এটি কেন্দ্রের মোদি সরকারের সাফল্য বলেই বিবেচিত করা হচ্ছে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে নিরব মোদি কে দেশে ফেরানোর জন্য লন্ডনের ওয়েস্ট মিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোট সায় দিয়েছিলেন। বিচারক স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন যে, ভারতীয় বিচারব্যবস্থার মুখোমুখি হতে হবে এবার নীরব মোদি কে। তারপর থেকেই বৃটেনের মুখ্যসচিবের অনুমতির অপেক্ষায় বসে ছিল ভারত। শুক্রবার সবুজ সঙ্কেত পাবার পর সিবিআই নিরব মোদী কে দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু করে দেবে।

আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই দেশে ফিরবে কয়েক হাজার কোটির কেলেঙ্কারিতে যুক্ত এই ব্যবসায়ী। বাংলার ভোট চলাকালীন নিরবের এই ভাবে ফিরে আসা প্রচারের অন্যতম অস্ত্র হতে পারে বলেই মনে করছেন অনেকে। একইভাবে ভারত সরকার বিজয় মালিয়ার প্রত্যাবর্তনের অনুমতি চেয়েছিল ২০০৯ সালে। কিন্তু সেই সময় আইনি মারপ্যাঁচের মধ্যে পড়ে থাকে আর দেশে ফেরানো হয়নি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১৪ ই মার্চ লন্ডনের একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে গিয়ে হঠাৎ করে গ্রেফতার হন নিরব মোদী। কিন্তু গ্রেফতারের পর জানতে পারা যায় যে, নিরবের হেফাজতি একাধিক পাসপোর্ট রয়েছে। মেট্রোপলিটন পুলিশের হেফাজতে সেগুলির মধ্যে একটি রয়েছে।