পর্যাপ্ত টাকা নেই কোভিড টেস্ট করানোর, বিদেশ থেকে বাড়ি ফিরতে পারলেন না ভারতীয় মহিলা

ভীষণভাবে আশাহত হতে হলো রিনা নামে মধ্যপ্রদেশের হারদা জেলার এক বাসিন্দা কে। গত ১১ মাস ধরে তিনি কাজ করছিলেন সৌদি আরবের এক সংস্থায়। নভেম্বর মাসে সেই মহিলা একটি অডিও ক্লিপের মাধ্যমে বন্দি জেলার কংগ্রেসের সহ সভাপতি চার্মিস শর্মাকে জানিয়েছিলেন যে, তিনি এবার বাড়ি ফিরতে চান। কম্পানি জোর করে তাকে আটকে রেখেছেন। তার সঙ্গে বারবার দুর্ব্যবহার করা হচ্ছে। মহিলা থেকে এই অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়টি ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের জানান চার্মেশ। সৌদি আরবের প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে সেই মহিলাকে ভারতে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করা হয়।

রীতিমতো স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছিলেন সেই মহিলা। এতদিন পর মধ্যপ্রদেশের বাড়িতে গিয়ে স্বামী এবং মেয়েকে জড়িয়ে ধরবেন বলে ভেবেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই আশা অবশেষে সম্পূর্ণ হলো না। করণা টেস্টের জন্য দেওয়ার মতো আর্থিক সামর্থ ছিলনা তার। তাই শেষমেষ তাকেই সৌদি আরব থেকে বিমানে উঠতে দেওয়া হলো না। মঙ্গলবার সৌদি আরব থেকে বিমানে ওঠার কথা ছিল তার। কিন্তু বিমান বন্দরে আসার পর তিনি শোনেন যে করনা পরীক্ষার জন্য ভারতীয় মুদ্রায় 17 হাজার টাকা নেওয়া হচ্ছে। সেই টাকা ছিল না তার কাছে। তাই বিমানে উঠতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এই বিষয়টি নিয়ে তিনি একটি অডিও ক্লিপ করেছেন। যেখানে তিনি জানিয়েছেন যে, তাকে আরো একমাস সৌদি আরবে থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ জোগাড় করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তিনি বাড়ি ফিরে যেতে চান। এই বিষয়ে তিনি বিদেশ মন্ত্রকের কাছে সাহায্য চেয়েছেন। বারবার কাতর আবেদন জানিয়েছেন যে, যেকোনো ভাবে তাকে দেশে ফেরার জন্য যেন কোনো ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। অন্তত করোনা টেস্ট এর জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ জোগাড় করে দেওয়া হয় তাকে।