দিল্লিতে রোহিঙ্গা ক্যা’ম্প ভে’ঙে ফেললো যোগী সরকার, উ’দ্ধা’র ক’রা হ’লো ১৫০ কোটির জ’মি

নিত্যদিন রাজ্য রাজনীতি নাটকের রঙ্গমঞ্চ, যদিও রাজনীতি মানেই একে অপরের প্রতি কাদা ছোড়াছুড়ি, একে অপরের ভুল ত্রুটি খুঁজে বের করে, বিপক্ষ পার্টিকে এক ঘরে করে তোলা। প্রতিনিয়তই কিছু না কিছু ঘটে চলেছে যা জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া উত্তপ্ত হয়ে ওঠে, তেমনি এখনকার বড়োসড়ো খবর হল যে দিল্লিতে বড়োসড়ো পদক্ষেপ নিয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ এর সরকার। যে ভিডিওটি নিয়ে ইতিমধ্যেই তোলপাড় শুরু হয়ে গেছে সমগ্র রাজ্য রাজনীতি। সেচ বিভাগের জমিতে রোহিঙ্গাদের অবৈধ কব্জা কে বুলডোজার দিয়ে নিমেষে ভেঙে ফেলা হয়েছে।

ইতিমধ্যে সেই ভিডিও আমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় পেয়েছি, যাতে দেখা যাচ্ছে বুলডোজার চালিয়ে দিয়ে রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পে নিমেষেই ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। কিছুদিন আগেও এই জায়গাতেই আগুন লেগেছিল, তাতে বেশ কিছু ঝুপড়ি পুড়ে ছাইও হয়ে গিয়েছিল। এবার যোগী সরকার বাকি বস্তি টুকু ভেঙে গুঁড়িয়ে দিলেন । সেই সময় পুলিশও সেই জায়গা উপস্থিত ছিল, তা ভিডিওটিতেই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

পুলিশের উপস্থিতি ছাড়াও, বহু মিডিয়ার ব্যক্তিত্ব, যারা এই দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করতে ব্যস্ত ছিলেন। কয়েক মিনিটের এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড হওয়া মাত্রই মুহূর্তে হইচই ফেলে দেয়। হঠাৎ কিছু বুঝে ওঠার আগেই এই ধরনের পদক্ষেপ। সব মিলিয়ে যে মোট ৫.২১ একর জমিতে রোহিঙ্গা দের একচ্ছত্র আধিপত্য ছিল, তা নিমেষে ছিনিয়ে নেয়া হলো তাদের থেকে।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার সকাল চারটে নাগাদ রাজধানী দিল্লির মদন পুর খাদর এলাকায়। এই জমির বর্তমান মূল্য ১৫০ কোটি টাকা, যদিও জানা যাচ্ছে এরপর আরো পদক্ষেপ নিতে চলেছে যোগী আদিত্যনাথ এর সরকার। কারণ দিল্লিতে উত্তরপ্রদেশের সেচ দপ্তরের অনেক জমি রয়েছে সেগুলি হল মদনপুর খাদর, জৈতপুর ,আলী সৈয়দাবাদ, জসৌলা, মলোরবন্ধ খেরুজিতে। যদিও দেখা গেছে বিগত কয়েকদিন ধরেই অবৈধ নির্মাণকার্য ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন যোগী সরকার। এরই মাধ্যমে বোঝা যাচ্ছে যে, আগামী দিনে তারা আরো বড়সড় পদক্ষেপ নিতে চলেছে, যা শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা।