শিক্ষামন্ত্রীর কথায় ঘুম উড়েছে, অনার্স পড়তে পারবে কি না প্রশ্ন পড়ুয়াদের মনে

করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্রকে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে।বিভিন্ন পদক্ষেপের মধ্যে অন্যতম পদক্ষেপ হলো উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা স্থগিত করে দেওয়া। যে হারে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে, কোনভাবেই কোন বোর্ড পরীক্ষা নিতে পারবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। কিন্তু পরীক্ষা বাতিল হয়ে যাওয়ায় উচ্চ মাধ্যমিকের নম্বর দেওয়া হবে পুর্ব প্রমানপত্রের সবথেকে বেশি নম্বরের গড় অনুযায়ী। কিন্তু এর ফলে আরেকটি সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে, যারা যে বিষয় নিয়ে ভবিষ্যতে পড়াশুনা করতে চাইছেন, প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী সেই বিষয়ে অনার্স করা যাবে কিনা এই চিন্তায় দিন কাটছে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের।

পদার্থবিদ্যায় অনার্স নিয়ে পড়াশোনা করার স্বপ্ন দেখছিল হাওড়ার দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র অনির্বাণ চৌধুরী।উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা বাতিল হওয়ার খবর পেয়ে তিনি শনিবার তো ফোন করে প্রশ্ন করে যে, “সে যদি ইংরেজিতে সর্বাধিক নম্বর থানার ইংরেজি নম্বরকে যদি পদার্থবিদ্যার নম্বর হিসেবে গণ্য করা হয় তাহলে পদার্থবিদ্যার অনার্স নিয়ে তিনি কলেজে ভর্তি হতে পারবেন তো”?

হিন্দু স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুরজিৎ দত্ত জানান যে তাকে অনেক পড়ুয়ারা ফোন করছেন। তারা জানতে চাইছেন যে, কলেজ যদি মেধা তালিকা অনুযায়ী ভর্তি নয় তাহলে তাদের কি হবে? অনেক ছাত্র-ছাত্রীরাই তাদের প্রিয় বিষয়ে বেশি নম্বর তোলার স্বপ্ন দেখেছিলেন, কিন্তু গড়ে নাম্বার দিয়ে দিলে সেই স্বপ্ন অপূর্ণ থেকে যাবে। পরীক্ষা দিতে পারলে প্রত্যাশানুযায়ী নাম্বার পাওয়া যেত। সে ক্ষেত্রে মেধা তালিকায় উপরের দিকে নাম থাকত। ভবিষ্যতে কলেজে ভর্তির ক্ষেত্রে অসুবিধা হতো।

কলেজিয়াম অফ অ্যাসিস্ট্যান্ট হেডমাস্টার এন্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সম্পাদক সুদীপ্ত দাস জানান, সাধারণত দুটি বিষয়ে ফেল করলে পরের বছর আবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়া যেত। কিন্তু এই বছর যেভাবে নম্বর দেওয়া হবে তার ফলে গতবছরের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিলে কিভাবে নম্বর দেওয়া হবে তা নিয়ে শুক্রবারে সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়নি।