হটাৎ পাল্টে গেলো আবহাওয়া, এই মুহূর্তে বড়ো খবর দিলো হাওয়া অফিস

আজ সকাল থেকেই কলকাতার আকাশ মেঘাচ্ছন্ন, আর তার ফলেই এই রাজ্যে এখন বৃদ্ধি পেয়েছে ভ্যাপসা গরম ও আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি। এদিকে আবার সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে অনেকটাই। আর তার ফলেই রাজ্য বাসী বিশেষ করে দক্ষিণবঙ্গের মানুষ নাজেহাল অবস্হায়। আজ কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮ ডিগ্রীর ঘরে ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রীর ঘরে। গত কয়েকদিন থেকে তাপমাত্রা এমনভাবেই ওঠানামা করছে। আর সেই কারণেই রাজ্যবাসী নাজেহাল হয়ে মরছে। এদিকে কিন্তু বৃদ্ধি পেয়েছে বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ। আজ বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৯২%।

তবে এখন তেমনভাবে রাজ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। হালকা মাঝারি বৃষ্টি হচ্ছে। তবে এই ভ্যাপসা গরম, আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি থেকে ছাড়া পাবে দক্ষিণ বঙ্গ এমনটা জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।একেবারে সেপ্টেম্বর থেকে এই অবস্হা । এইসব কমলেও কবে কমবে সেটা জানায় নি আবহাওয়া দপ্তর। তাই আপাতত এখন এই অস্বস্তির মধ্যেই কাটাতে হবে দক্ষিণবঙ্গের মানুষকে‌।

আসলে দক্ষিণ বঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন মাত্রায় বৃষ্টি হয়েছে, যার ফলেই এখন দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন তাপমাত্রা। বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা অনেক জায়গায় অনেক রকম। বাঁকুড়া, দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগণা, পুরুলিয়া, বীরভূম, নদীয়া, মুর্শিদাবাদ সব জায়গায় হালকা মাঝারী বৃষ্টি হয়েছে । আগামী দিনেও যে এ বৃষ্টি চলবে সেটাও স্পষ্ট। তবে দক্ষিণবঙ্গের সাথে উত্তরবঙ্গের কথা বলতে গেলে বলতে হয় এখানেও আজ মঙ্গলবার থেকে বৃষ্টির পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে বলে। তাই এখানেও ৫ জেলায় কোচবিহার আলিপুরদুয়ার জলপাইগুড়ি দার্জিলিং কালিংপং এখানেও বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা মাঝারি বৃষ্টি হবে। কারণ এখন মৌসুমী অক্ষরেখা হিমালয়ের পাদদেশ পর্যন্ত বিস্তৃত।