বদলাচ্ছে আবহাওয়া, জন্ডিস হলে কি করবেন আপনি? কি বলছেন চিকিৎসকরা, জানুন

আমাদের মধ্যে অনেকেরই ধারণা রয়েছে জন্ডিস একটি রোগ কিন্তু আসলে তা নয় জন্ডিস হলে একটি রোগের লক্ষণ মাএ। সেদিন ধরনের জন্ডিস লক্ষ্য করা যায় হেপাটাইটিস এ বি এবং ই। তবে সবার হেপাটাইটিস বি টিকা নিয়ে নেওয়া ভালো। হেপাটাইটিস এ’ ও বি’ জলের মাধ্যমে হয়ে থাকে আর হেপাটাইটিস-বি রক্তের মাধ্যমে কোন রোগী হতে পারে। এই সমন্ধে চিকিৎসক ও অধ্যাপক রহিম আহমদ বলেছেন, জন্ডিস হলে অনেকেই বুঝতে পারেন না কিন্তু যখন কারোর চোখের রঙ প্রস্বাব হলুদ হতে থাকে, তাহলে তার সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

জন্ডিস হলে কি কি করতে হবে কি কি না করতে হবে জেনে নেওয়া যাক:

জন্ডিস হলে রোগীকে বেশি পরিশ্রম করা যাবেনা না অর্থাৎ কোনো কঠিন কাজ না করাই উচিত। জন্ডিস সাধারণত লিভারের রোগ বিশেষত ভারী কাজ করার ফলে লিভারের উপর চাপ সৃষ্টি হতে পারে, তবে হালকা কাজ করা যেতেই পারে। অন্যদিকে খাবারে দিক থেকে সেরকম কোনো বিধিনিষেধ না থাকলেও।

জন্ডিস হলে যকৃতের উপর বেশি প্রভাব পড়ে, তারুণ্য চর্বিজাতীয় খাবার না খাওয়াই ভাল এই সময়। অর্থাৎ ঘি মাখন খাসির মাংস এগুলো একদমে চদেনা জন্ডিসের সময়। এছাড়াও জন্ডিসের সময় অনেকে বারবার জল খেয়ে থাকে কিন্তু জন্ডিস এর ধরন অনুযায়ী জল খাওয়া ভালো। তবে এই সময়ে আখের রস লাবেলস এগুলো খেলে শরীর ঠান্ডা থাকবে। তবে অবশ্যই জন্ডিস এর ধরন অনুযায়ী আখের রস ডাবের রস খাবেন।

অনেকে মনে করেন হলুদ দেওয়া খাবার খাওয়া উচিত নয়। এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল জন্ডিসের কারণ হলো রক্তে বিলিরুবিন এক উপাদান বেড়ে যাওয়া যার সাথে হলুদের কোন সম্পর্ক নেই। অন্যদিকে জন্ডিসে আক্রান্ত কোন মা তার শিশুকে দুধ পান করাতে পারবে না এই ধারণা ভুল। তবে মা হেপাটাইটিস বি ভাইরাসে আক্রান্ত হলে শিশুকে টিকাকরণ করানো উচিত।