অপেক্ষার অবসান, খুব তাড়াতাড়ি খুলতে চলেছে স্কুল, বড়ো আপডেট দিলো স্কুলশিক্ষা দপ্তর

দীর্ঘ প্রায় এক বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটলো। প্রায় ১১ মাস পরে রাজ্যের স্কুলগুলি আবারও খুলতে চলেছে। করোনাকালে গত বছরের মার্চ মাস থেকে জানুয়ারি মাস পর্যন্ত টানা বন্ধ থাকার পর ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই রাজ্যের স্কুলগুলি খোলার প্রস্তাব দিয়েছে স্কুল শিক্ষা দপ্তর। মুখ্যমন্ত্রীর অনুমোদন মিললেই ফেব্রুয়ারি মাস থেকে স্কুলে যেতে পারবেন পড়ুয়ারা। মূলত মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের কথা ভেবেই ফেব্রুয়ারি মাস থেকে স্কুলের পাঠক্রম চালু করতে চায় স্কুল শিক্ষা দপ্তর।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, স্কুল শিক্ষা সংসদের সিদ্ধান্ত অনুসারে চলতি বছরের জুন মাস থেকেই মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের পরীক্ষা শুরু হতে চলেছে। তবে একাদশ এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের প্রাকটিক্যাল পরীক্ষা ১০-৩১শে মার্চের মধ্যেই শেষ করতে হবে, এমনটাই নির্দেশ মিলেছে। ২০শে এপ্রিলের মধ্যেই ছাত্র-ছাত্রীদের প্রাপ্ত নম্বর স্কুল শিক্ষা সংসদে পাঠানোর নির্দেশ পেয়েছে স্কুলগুলি।

করোনাকালে অবশ্য অনলাইনে পাঠক্রম চালু করা হয়েছে। ছাত্র-ছাত্রীরা এতদিন সেভাবেই পড়াশোনা করছিলেন। চলতি শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা যদিও বা আড়াই মাস স্কুলে পড়াশোনা করার সুযোগ পেয়েছিলেন, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে তা সম্ভব হয়নি। অনলাইনে পড়াশোনাই ছিল তাদের একমাত্র উপায়। তবে একাদশ এবং উচ্চমাধ্যমিক স্তরে পাঠক্রমের ক্ষেত্রে প্রাক্টিক্যালগুলি অনলাইনে করানো সম্ভব নয়।

শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে শিক্ষক মহলের দাবি ছিল, প্র্যাকটিক্যালের জন্য স্কুল চালু হওয়া আবশ্যক। এদিকে স্কুল শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশ অনুসারে রাজ্যের সমস্ত স্কুলের স্যানিটাইজেশন প্রক্রিয়াও সম্পন্ন হয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং শিক্ষা কর্মীদেরও পালা করে স্কুলে আসতে হচ্ছে। এমতাবস্থায় কোভিডবিধি মেনেই ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হোক, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এমনটাই আরজি শিক্ষা সংসদের।