লাদাখ ইস্যু নিয়ে চিনকে ফের বড় ধাক্কা দিল আমেরিকা

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সীমান্ত পেরিয়ে সে দেশের ভূখণ্ড দখলের প্রচেষ্টা যেন দিন প্রতিদিন বাড়িয়েই চলেছে চীন। একদিকে লাদাখে ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষ, অপরদিকে দক্ষিণ চীন সাগরসহ এশিয়ার একাধিক অংশ দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে চীন। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন না কূটনীতিকরা।

সম্প্রতি, উটাহের একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা রবার্ট ও ব্রায়েন ভারত-চীন সীমান্ত পরিস্থিতি বিবেচনা করে উদ্বেগ প্রকাশ করে জানালেন, সীমান্ত সমস্যার সমাধানে চীনের সঙ্গে ভারতের আর কোনো আলোচনা, চুক্তি, বৈঠকে কোনো লাভ হবে না। তার স্পষ্ট বক্তব্য, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে জোর করে ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করার চেষ্টা করছে চীন। এখন আর কোনো আলোচনাতেই তাদের পিছু হটানো সম্ভব নয়।

চীনের আগ্রাসী মনোভাব বিবেচনা করে রবার্ট ও ব্রায়েনের পরামর্শ, এখন সময় এসে গেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে এবার চীনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতেই হবে। নিজেদের সামরিক শক্তি প্রদর্শনের মাধ্যমে তাইওয়ানকেও ভয় দেখিয়ে চলেছে চীন, এমনটাই দাবি করেছেন মার্কিন মুলুকের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা।

পাশাপাশি চীনের “ওয়ান বেল্ট ওয়ান রোড” আন্তর্জাতিক প্রকল্পটিরও বিরোধিতা করেছেন রবার্ট ও ব্রায়েন। তার অভিযোগ, এই প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন ছোট কোম্পানিকে চীনের কাছ থেকে ঋণ নিতে এবং সেই সংস্থায়চীনা কর্মী নিয়োগ করতে বাধ্য করা হচ্ছে। এর ফলে ঋনের দায়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বিশ্বের বহু দেশ।