অপ্রত্যাশিত সিদ্ধান্ত নিলো আমেরিকা, করলো না সাহায্য, করোনা প্রতিষেধক বানাতে 800 কোটি ডলার দিলো গোটা বিশ্ব

ইতিমধ্যেই গোটা বিশ্ব জুড়ে করোনা একপ্রকার ত্রাস হিসেবে ছড়িয়ে পড়েছে।বিশ্বের প্রায় সমস্ত প্রান্তেই করোনার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছে।শুধু তাই নয়,বর্তমানে গোটা বিশ্ব জুড়েই চলছে লকডাউন এবং কোয়ারেন্টাইন।এখনও কোনও প্রতিষেধক বের না হওয়ায় বিশ্ব জুড়ে তাই জারি হয়েছে লকডাউন। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে চীন সহ প্রায় সমগ্র বিশ্ব একটি অভাবনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করলেও আমেরিকা রইল বিরত।

প্রসঙ্গত, চীন সহ বিভিন্ন দেশের নেতা এবং সংগঠনরা যৌথভাবে ৮০০ কোটি ডলারের প্রতিষেধক তৈরীতে একটি আর্থিক প্যাকেজ ঘোযণা করলেন। তবে উল্লেখযোগ্য হলো এই দলে নেই আমেরিকা।একপ্রকার অস্বাভাবিক হলেও সারা বিশ্বের এই যৌথ প্রচেষ্টা থেকে নিজেদের নাম দূরে রাখলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড  ট্রাম্প।গোটা পৃথিবী জুড়ে যখন এরম একটি মর্মান্তিক পরিস্থিতি তৈরী হয়েছে তখন বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে এই মীলিত প্রয়াস থেকে কেনো আমেরিকা নিজেদের দূরে সরালেন তা এখনই বলা সম্ভব নয়।

এই প্রসঙ্গে বিশ্লেষকদের মতামত অনুযায়ী, গোটা বিশ্বের মধ্যে করোনা সংক্রমণের জেরে সবথেকে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হলো আমেরিকা। কিন্ত তাঁদেরই এই প্রচেষ্টা অংশ না নেওয়ার যথাযথ কারণ এখনই বলা সম্ভবপর নয়। এটি গোটা বিশ্বের কাছে যুক্তিযুক্ত না হলেও বর্তমানে এটি বাস্তব। এই বিষয়ে মার্কিন আধিকারিকরা অংশগ্রহণ না করার কোনও নির্দিষ্ট কারণ জানাতে চাননি।তবে গত মাসেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিরুদ্ধে চিনের হয়ে কাজ করার একটি অভিযোগ এনে আর্থিক অনুদান বন্ধ করেছে সূদুর মার্কিন রাষ্ট্র।