ছেলে বিজেপি ক’র্মী, টি’কা থেকে ব’ঞ্চি’ত ৮০ বছরের বৃদ্ধ, উল্টে জু’ট’লো “গালিগালাজ”

সকাল-সকাল ভ্যাক্সিনেশন কেন্দ্রে ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য পৌঁছে গিয়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করার পরেও ভ্যাকসিন পেলেন না ৮০ বছরের এক বৃদ্ধ ব্যক্তি। তার অপরাধ, তার ছেলে বিজেপি কর্মী। শুধুমাত্র এই কারণেই তাকে ভ্যাক্সিনেশন কেন্দ্র থেকে খালি হাতেই ফেরত পাঠানো হলো। একই সঙ্গে তার সঙ্গে অত্যন্ত দুর্ব্যবহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে তারকেশ্বরের পূর্ব রামনগর গ্রামে।

তারকেশ্বরের পূর্ব রামনগর গ্রামের বাসিন্দা পরিতোষ বিশ্বাস নামের ওই ব্যক্তি শুক্রবার ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার জন্য স্থানীয় পঞ্চায়েত অফিসে হাজির হন। গ্রামের একজন আশা কর্মী আগেই তাকে বাড়িতে এসে টোকেন দিয়ে গিয়েছিলেন। সেই মতো নির্দিষ্ট পঞ্চায়েত অফিসে হাজির হয়ে যান ওই ব্যক্তি। দীর্ঘক্ষন লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করার পর তাকে কার্যত লাইন থেকে বের করে দেওয়া হয় এই বলে যে যেহেতু তার ছেলে বিজেপি করে, তাই তিনি ভ্যাকসিন পাবেন না।

এমনকি পঞ্চায়েতের একজন অস্থায়ী কর্মীর বিরুদ্ধে ওই ব্যক্তিকে গালিগালাজ করার অভিযোগ উঠেছে। ভ্যাকসিন না পেয়ে ফিরে এসে ওই ব্যক্তি সম্পূর্ণ বিষয়টি স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধানকে জানান। পঞ্চায়েত প্রধান অভিযোগ পেয়েই ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন যে ওই ব্যক্তিকে দ্রুত ভ্যাকসিন প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়াও ঘটনা প্রসঙ্গে ইতিমধ্যেই পুলিশের কাছে অভিযোগ পৌঁছেছে।

পঞ্চায়েতের উপ-প্রধান ঘটনা প্রসঙ্গে পরে জানিয়েছেন, এই ধরনের ঘটনা একেবারেই কাম্য নয়। ঠিক কী ঘটেছে, তা তিনি খতিয়ে দেখবেন। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন যদি ঘটনাটি সত্যি হয় তাহলে তিনি নিজে ওই ব্যক্তিকে ভ্যাকসিন দেওয়ার বন্দোবস্ত করবেন। আরামবাগ জেলা বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ অবশ্য ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমুলকেই কটাক্ষ করে বলেছেন, ভ্যাকসিন নিয়ে নোংরামি চলছে রাজ্যে। যা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন।