গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুরোহিতকে পুড়িয়ে মারা হল রাজস্থানে, উত্তাল গোটা দেশ

মন্দিরের সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে, মন্দিরের পুরোহিতকেই জীবন্ত পুড়িয়ে মারা হলো। বর্বরোচিত এই ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের কারৌলি জেলায়। বৃহস্পতিবার রাতে জয়পুরের হাসপাতালে মারা গিয়েছেন সেই পৌঢ় পুরোহিত। সূত্রের খবর, সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে বুধবার কয়েকজন দুষ্কৃতী ৫০ বছর বয়সী ওই পুরোহিতের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এই ঘটনার জেরে উত্তাল রাজস্থানের রাজনৈতিক পরিবেশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, কয়েক জন দুষ্কৃতী ওই মন্দিরের তিন একর জমি দখল করে নিতে চায়। তাদের সেই পরিকল্পনার পথে বাঁধা হয়ে দাড়িয়ে ছিলেন বাবুলাল বৈষ্ণব নামক ওই পুরোহিত। বাবুলালের থেকে বাধা পেয়ে পুরোহিতের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। সেই আগুনের মধ্যে থেকে তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে নিকটস্থ সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে চিকিৎসকেরা তাকে জয়পুরের হাসপাতালে রেফার করেন।

পুলিশের রিপোর্ট অনুযায়ী, মৃত পুরোহিত এর আগে কখনো জমি বিবাদ নিয়ে কোনো অভিযোগ দায়ের করেননি। তবে তার মৃত্যুকালীন জবান বন্দিতে তিনি কৈলাস মিনাসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে গেছেন। রাজস্থান পুলিশ এসপি জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রথমে খুনের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। এবার সরাসরি তাদের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ লাগু হবে।

তবে ইতিমধ্যেই ঘটনার সঙ্গে রাজনৈতিক রঙ লাগাতে কসুর করছেন না রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা। বিশেষত কেন্দ্রীয় শাসকদলের তরফ থেকে ইতি মধ্যেই ঘটনার পরে কংগ্রেস দলনেতা রাহুল গান্ধীর ভূমিকা নিয়ে কটাক্ষ করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। পাশাপাশি, রাজ্যবর্ধন রাঠৌর, বসুন্ধরা সিন্ধিয়ার মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরাও রাহুল গান্ধীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। হাথরাস কান্ডের পর এবার কংগ্রেস দলনেতাকে কার্যত পাল্টা চাপে ফেলার প্রচেষ্টা করছে বিজেপি। বিরোধিদের বিরুপ মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট জানিয়েছেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।