গ্রামে ফেরার আনন্দে দেদার মিষ্টিমুখ করানো ব্যক্তি নিজেই করোনা পজিটিভ, ঘুম উড়েছে গ্রামবাসীর

করোনা এক প্রকার ত্রাস হিসেবে আজ গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।দেশের প্রায় সমস্ত প্রান্তেই করোনার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছে।ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে, ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯ হাজার অতিক্রম করেছে গিয়েছে।এখনও অবধি কোনো প্রতিষেধক বের না হওয়ায় কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে লকডাউনের রাস্তা বেঁছে নেওয়া হয়েছে।তবে এর মধ্যেই এলো এক চাঞ্চল্যকর খবর।জার জেরজ উদ্বেগে রয়েছে গোটা গ্রামবাসী।

প্রসঙ্গত,বর্তমানে লকডাউন চলাকালীন অবস্থায় কলকাতা থেকে গ্রামে ফিরেই এক ব্যাক্তি সবাই কে খুশিতে মিষ্টিমুখ করিয়েছিলেন।ঠিক একদিন পরেই তাঁর শরীরে করোনা ভাইরাস পজিটিভ ধরা পড়েছে।বর্তমানে জানা গিয়েছে তিনি এখন রায়গঞ্জের কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। সরকারি কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন পরিবারের বাকি সদস্যরাও।কিন্ত এখন এখন এই ‘মিষ্টিমুখ’ করানোটাই জেলা স্বাস্থ্য দফতরের কাছে সবথেকে বেশি মাথাব্যাথার কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জানা গিয়েছে,ইতিমধ্যেই নাকি প্রসাসনের তরফ থেকে খোঁজা শুরু হয়ে গিয়েছে ঠিক কাদেরকে এই ব্যক্তি মিষ্টিমুখ করিয়েছিলেন,।শুধু তাই নয় পাশাপাশি এই ব্যক্তির করোনা পজিটিভের খবর আসা মাত্রই গোটা গ্রামেই সৃষ্টি হয়েছে চাপানউতোর।জায়গাটি হলো রায়গঞ্জের শেরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ধুরাইল গ্রামে।অবশ্য প্রশাসন সূত্রের জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির কথা অনুযায়ী তিনি নাকি গ্রামের ৩০ জনকে আনন্দে মিষ্টি খাইয়েছিলেন।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন