অত্যধিক গরমে হাঁসফাঁস করবে রাজ্যের মানুষ, দাবি আবহাওয়া দপ্তরের

চলতি দফার শীতের দাপট যেমন রীতিমতো বাঙালির হাড়ে কম্পন ধরিয়ে দিয়ে তবেই বিদায় নিয়েছে, তেমনই এই দফার গ্রীষ্মও কিন্তু বাঙালিকে রীতিমতো তাপে ঝলসানোর জন্যই প্রস্তুত হচ্ছে। আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে অন্তত তেমনটাই জানা যাচ্ছে। আলিপুরের রিপোর্ট অনুযায়ী, আগামী কয়েক সপ্তাহে ভ্যাপসা গরম অনুভূত হবে কলকাতার সর্বত্র। শনিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশে পাশেই থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

চলতি দফায় গরমের দাপট এমনই যে বসন্তকালেও স্বস্তি নেই। বসন্তের শুরুর মুহূর্ত থেকেই শহরের তাপমাত্রা প্রায় ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। এখনো সেই ধারা অব্যাহত রয়েছে। শনিবারের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কম করে হলেও ২২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশে পাশেই থাকবে। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ সর্বাধিক ৯৫ শতাংশ এবং ন্যূনতম ৩৫ শতাংশের মধ্যেই থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

গতকাল শহরের সর্বাধিক তাপমাত্রা ছিল ৩৪.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা প্রায় দুই ডিগ্রী বেশি। এই দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২১.৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা প্রায় এক ডিগ্রি বেশি ছিল। আগামী কয়েকদিনে কলকাতায় বৃষ্টিপাতের কোনো সম্ভাবনা নেই বলেই জানানো হয়েছে। তাই আগামী সপ্তাহ থেকে কলকাতার তাপমাত্রা দিন প্রতিদিন বাড়বে বৈ কমবে না।

হাওয়া সূত্রে খবর, বসন্তকাল ইতিমধ্যেই প্রায় সারা ভারত বর্ষ থেকেই উধাও হয়েছে। গ্রীষ্মের দাপট ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। চলতি দফায় ভারতবর্ষের তাপমাত্রার রেকর্ড বৃদ্ধি পাবে বলেই আগাম পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। উত্তর, উত্তর পশ্চিম, উত্তর পূর্ব এবং পূর্ব ভারতের কিছু রাজ্যে স্বাভাবিকের তুলনায় তাপমাত্রা অনেকখানি বেশি থাকবে। ভারতের কয়েকটি রাজ্য ছাড়া বাকি সব রাজ্যেই দাপটের সঙ্গে বিরাজ করবে গ্রীষ্ম।