একমাত্র কারণ ক’রো’না: ২০৩০-র মধ্যে দেশে ১.৮ কোটি মানুষ পেশা বদলাতে বাধ্য হবেন

গতকাল শুক্রবার ম্যাকিনসে গ্লোবাল ইনস্টিটিউটের তরফ থেকে এক অবাক করা তথ্য প্রকাশ করল, যা দেখে অনেকেই অবাক। সেখানে বলা হয়েছে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে দেশের ১.৮ কোটি শ্রমিক নিজেদের পেশা বদলে ফেলতে বাধ্য হবে। আমরা সবাই জানি ২০২০ সালের করোনা মহামারীর কারণের জন্য শ্রম বাজারে কতটা বাজে প্রভাব পরেছে। রিপোর্টে স্পষ্ট করেই বার্তা দেওয়া হয়েছে যে, করোনা দুশ্চিন্তা এখনও পুরোপুরিভাবে দূর হয় নি, আর সেই কথা মাথায় রেখেই সরকার নতুন ভাবে কাজ শুরু করেছে।

ইতিমধ্যে বিভিন্ন বেসরকারী সংস্থা তাদের লোকসান কম করতে অনেক কর্মী ছাটাই পর্যন্ত করেছে। তাছাড়া এখনও চলছে অনেক জায়গায় ওয়ার্ক ফর্ম হোম। যদি লক্ষ্য করে দেখা যায় এই যে করোনা মহামারি সেই কারণে সব থেকে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অংগঠিত শ্রমিকেরা। বিশেষ করে যারা মহামারীর সময় শহর থেকে গ্রামে ফিরে এসেছিল, তারা কিন্তু আর পুনরায় ফিরে যাচ্ছে না শহরে কাজের সন্ধানে।

তাই সেই রিপোর্টে স্পষ্ট করেই বলা হয়েছে, আগে খুব সহজেই কম বেতনে অনেক ছোটখাটো কাজ পাওয়া যেত, কিন্তু এই মহামারীর কারণে সেটা আর পাওয়া যাচ্ছে না। দেখা গেলে সেই সব কাজই ছিল কোটি কোটি শ্রমিকের রুজি রুটি। এখানে সুযোগ নেই আর আগের মতো। তাই শ্রমিকেরা বাধ্য হয়েই বদল করতে চলেছে পেশা।