চীনকে ঠান্ডা করতে জরুরি ভিত্তিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে কামান আমদানি করছে নৌসেনা

গত জুন মাস থেকে পূর্ব লাদাখ সীমান্ত নিয়ে ভারত ও চীনের মধ্যে যে সংঘর্ষ যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে তার এখনও অবসান ঘটেনি। দিন যাচ্ছে আরো যেন প্রখর হয়ে উঠছে।ভারতে এবার চীনকে আরো বেশি সহায়তা করতে এবং উপযুক্ত জবাব দিতে মার্কিন সামরিক অস্ত্র ক্রয় করছে। চীনের সাথে ভারতের সম্পর্ক খারাপ থেকে খারাপ হতে চলেছে দিনের পর দিন, তবে সামরিক ক্ষেত্রে আমেরিকার সাথে সম্পর্ক আরও মজবুত হতে চলেছে ভারতের। এর আগেও ভারত বিভিন্ন উন্নত মানের সামরিক অস্ত্র ক্রয় করেছে আমেরিকার কাছ থেকে। তবে এবার একেবারে জরুরী ভিত্তিতে নৌ সেনার রণতরী গুলির জন্য অত্যাধুনিক কামান ক্রয় করছে ভারত।

এতে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে চিনা নৌসেনার মোকাবেলা করতেই এই পদক্ষেপ ভারতের। সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা যাচ্ছে, ১২৭ মিমি ক্যালিবারের মধ্যম পাল্লার কামান কিনতে চলেছে ভারত। ইতিমধ্যে ৩৮০০ কোটি টাকার চুক্তি করেছে ভারত আমেরিকার সাথে। তবে একেবারে জরুরী ভিত্তিতে এইসব সামরিক অস্ত্র প্রয়োগ করতে চলেছে ভারত,আর সেই কারণেই আমেরিকা তাদের নিজের ভান্ডার থেকে আপাতত দুটি অত্যাধুনিক কামান ভারতকে প্রদান করবে বলে জানা গেছে। আগামী দুই বছরের মধ্যে ১১টি অত্যাধুনিক কামান ভারতীয় নৌ সেনাদের হাতে এসে যাবে। একেবারে উচ্চমানের ভারতীয় নৌসেনার ডেস্ট্রয়ারগুলোর মধ্যে এই কামানগুলো বসানো হবে।

চীনের সাথে ভারতের সম্পর্ক দিনের পর দিন খারাপ হয়েছে ঠিকই কিন্তু উল্টো দিকে আমেরিকার সাথে ভারতের সম্পর্ক এখন দিনের পর দিন মজবুতের পথে। আর যে কারণেই একেবারে সোভিয়েত জামানার সমস্ত সামরিক অস্ত্র ত্যাগ করে মার্কিন অস্ত্র ব্যবহারের পথে ভারত।ভারত ইতিমধ্যে রাশিয়ার তৈরি নজরদারি করা বিমান বাতিল করে ভারতের সামরিক অস্ত্র ভাণ্ডারে যোগ করেছে মার্কিন বিমান Poseidon-8