পাওনা সা’ড়ে ৩ লক্ষ টা’কা না পাওয়ায় মালিকের ৫ কো’টি’র বা’ড়ি ভে’ঙে দি’লো মিস্ত্রি

কাজ করিয়ে নিয়েও টাকা দিচ্ছিলেন না মালিক। মালিককে বারবার টাকা চেয়েও নিজের কষ্টের টাকা পাননি এক মিস্ত্রি। শেষমেষ টাকা আদায় করতে না পেরে বরং মালিকেরই ক্ষতি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন ওই ব্যক্তি। নিজের প্রাপ্য সাড়ে তিন লক্ষ টাকা আদায় করতে না পেরে মালিকের ৫ কোটি টাকা মূল্যের বাড়ি সম্পূর্ণ ভেঙে গুঁড়িয়ে দিলেন ওই মিস্ত্রি!

এ দিকে মিস্ত্রি তাঁকে মোটা টাকা বিল ধরিয়ে দিয়েছিলেন। তার মধ্যে ওই ৪ কোটি ৮৮ লাখ ৭২ হাজার টাকা তিনি মিটিয়েও দেন।

ঘটনাটি ঘটেছে ইংল্যান্ডের লেস্টারের স্টোনিগেটে। ৪০ বছর বয়সি জে কুর্জি সম্প্রতি ওই স্থানে একটি বাড়ি কিনেছিলেন। ৪ কোটি ৮৮ লাখ ৭২ হাজার টাকা খরচ করে সেই বাড়িটিকে বাসযোগ্য করে তুলেছিলেন তিনি। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বাড়ি তৈরির কাজ শুরু হয়। দো তলার পরিকাঠামো নির্মাণ, নতুন করে কিছু কাঠামো সংযোজন, সম্পূর্ণ বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা, নতুন ছাদ এবং সর্বোপরি গোটা বাড়িকেই পরিবেশ-বান্ধব করে তুলেছিলেন তিনি।

তবে সুযোগ খুঁজছিলেন প্রতিশোধের। সম্প্রতি বাড়ি থেকে ৩০০ কিমি দূরে সপরিবার ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন জে। সেই খবর পেয়েই লোকজন নিয়ে তাঁর ফাঁকা বাড়িতে হানা দেন ওই মিস্ত্রি।

তবে যে মিস্ত্রিকে দিয়ে তিনি কাজটি করিয়ে ছিলেন, সেই মিস্ত্রির কাজ তার একেবারেই পছন্দ হয়নি। তবুও মিস্ত্রির বিলের ৪ কোটি ৮৮ লাখ ৭২ হাজার টাকা মিটিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। তবে মিস্ত্রি অতিরিক্ত সাড়ে তিন লক্ষ টাকা দাবি করছিলেন। যা মেটাতে রাজি ছিলেন না ঐ ব্যক্তি। তাই নিয়েই শুরু হয় বিতর্ক। বিতর্কের ফলাফল হিসেবে ওই মিস্ত্রি সম্পূর্ণ বাড়িটিকেই আবার ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়ে যায়।

সম্প্রতি ওই বাড়ির মালিক তার পরিবার নিয়ে অন্য জায়গায় ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন। সেই খবর পেয়েই মিস্ত্রি তখন লোকজন নিয়ে এসে ফাঁকা বাড়িতে তাণ্ডব চালায়। নতুন পরিকাঠামোর বহু অংশ ভেঙে দিয়ে যায় সে। ঘটনার পর ওই মিস্ত্রির বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছিলেন বাড়ির কর্তা। তবে তাতে নাকি লাভ কিছুই হয়নি।