আজানের সময় ছাত্রীকে ঘরে ডেকে ধ’র্ষণ মাদ্রাসা সুপারের, আটক মাওলানা আব্দুল কাদের

বাংলাদেশের কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের স্বরূপদহ চকপাড়া এলাকার সিরাজুল উলুম মরিয়ম নেসা মাদরাসার সুপার মাওলানার বিরুদ্ধে ওই মাদ্রাসারই এক আবাসিক ছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠলো। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম জানালেন, নির্যাতিতার বাবার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার রাতেই অভিযুক্ত মাওলানা আব্দুল কাদেরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, নির্যাতিতা ওই ছাত্রী ওই মাদ্রাসারই একজন আবাসিক। সপ্তাহে ছয়দিন সে মাদ্রাসাতেই থাকে। প্রত্যেক শুক্রবার ওই ছাত্রীর বাবা এসে তাকে বাড়িয়ে নিয়ে যান এবং শনিবার সকালেই আবার মাদ্রাসায় রেখে যান। নির্যাতিতা ওই ছাত্রী জানিয়েছে, গত রবিবার ভোরে ফজরের আজানের সময় তাকে নিজের ঘরে ডেকে পাঠায় মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আব্দুল কাদের এবং তার উপর অত্যাচার চালায়।

পাশাপাশি, ঘটনার কথা কাউকে না জানানোর জন্য ওই ছাত্রীকে ভয়ও দেখায় মাওলানা। তবে সোমবার সকালে নিজেরই এক সহপাঠীকে সবকিছু খুলে বলে ওই নির্যাতিতা ছাত্রী। এরপর সেই সহপাঠী তার বাবাকে মাওলানার কীর্তিকলাপ খুলে বলে। বিষয়টি জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা মাদ্রাসা ঘেরাও করে অভিযুক্ত মাওলানার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন‌।

বিক্ষোভকারীরা, এলাকা ঘেরাও করে দোষীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাতে থাকেন। এরপর ওই ছাত্রীর বাবা মাওলানার বিরুদ্ধে মিরপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন এবং সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রাতেই অভিযান চালিয়ে দোষীকে আটক করে পুলিশ। মিরপুর থানার ওসি আবুল কালাম জানিয়েছেন, নির্যাতিতা ওই ছাত্রীকে মেডিকেল টেস্টের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।