৮৮ বছর আগেও হিন্দি সিনেমায় শ্যুট হয়েছিল লম্বা চুম্বন দৃশ্য, যাকে আজও কেউ দিতে পারেনি টক্কর

হালফিলের সিনেমা জগতে অন্তরঙ্গতার দৃশ্য এমন কোনো আহামরি বিষয় নয়। যেকোনো রোমান্টিক সিনেমা কিংবা ওয়েব সিরিজে আকছার এমন দৃশ্য দেখা যায়। অন্তরঙ্গ দৃশ্য গুলির মধ্যে চুম্বনের দৃশ্য এই যুগে অত্যন্ত সাধারণ হয়ে গিয়েছে। চুম্বনের দৃশ্য বা নায়ক-নায়িকার অন্তরঙ্গ মুহূর্ত দেখলে এখন আর দর্শকদের মধ্যে তেমন শোরগোল পড়ে যায় না। এ যেন “নিতান্তই স্বাভাবিক একটি দৃশ্য” হিসেবেই বিষয়টিকে উপভোগ করেন দর্শক।

৯০ এর দশকের সিনেমাগুলি থেকেই বলিউডে নায়ক-নায়িকার চুম্বনের দৃশ্যের গ্রহণীয়তা বেড়েছে। “রাজা হিন্দুস্তানি” সিনেমাটিতে করিশ্মা কপূর এবং আমির খানের চুম্বনের দৃশ্য দর্শকদের মধ্যে রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিয়েছিল। এরপর থেকে অবশ্য বলিউডে চুম্বন দৃশ্যের রমরমা বেড়েছে। দর্শকেরাও বিষয়টি বেশ উপভোগ করেছেন।

Image result for women's erotica

তবে এটা জেনে হয়ত অনেকেই অবাক হবেন যে তথাকথিত আধুনিকতার যুগে যে চুম্বন দৃশ্য গুলি শুট করা হয়েছিল সেই দৃশ্য গুলিকে রীতিমতো টেক্কা দিয়েছে ১৯৩৩ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ছবি “কর্মা”! কারণ এই ছবির নায়ক-নায়িকা একে অপরকে দীর্ঘ আট মিনিট ধরে চুম্বন করেছিলেন। বলিউডের ইতিহাসে এই দৃশ্যটিই প্রথম দীর্ঘ চুম্বন দৃশ্য হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

এখানে ক্লিক করে দেখুন ভিডিও

দেবীকা রানি এবং হিমাংশু রাই অভিনীত এই দৃশ্যটি তৎকালীন সময়ের ভারতীয় সিনেমা জগতে এক “রেনেসাঁস” বলা যেতে পারে। কারণ এই দৃশ্য শ্যুট করার জন্য যথেষ্ট সাহসের প্রয়োজনীয়তা ছিল। সেই সাহস দেখিয়েছিলেন দেবীকা রানি এবং হিমাংশু রাই। শোনা যায় তারা বাস্তব জীবনেও একে অন্যের প্রতি অনুরক্ত ছিলেন। এই ছবিটি প্রথমে অন্য একটি ভাষায় মুক্তি পেয়েছিল। এরপর যখনই হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে সিনেমাটি মুক্তি পায় তখন তার নাম হয়েছিল “নাগন কি রাগিনী”।