মায়ের জিনেই লুকিয়ে আছে সন্তানের বুদ্ধিমত্তা হওয়ার পরিচয়, নতুন গবেষণায় উঠে এলো নতুন তথ্য

আমাদের মধ্যে একটা কথা খুবই প্রচলিত যে, মেয়েরা যদি বাবার মত দেখতে হয়, তাহলে তারা খুব সুখী হয়। অন্যদিকে ছেলেরা যদি মায়ের মত দেখতে হয় তাহলে সেই ছেলেও খুব সুখী হয়। আরো অনেক বিষয় রয়েছে এর মধ্যে যা ব্যাপকভাবে আমাদের সংস্কৃতির মধ্যে প্রচলিত রয়েছে। আমরা সবাই জানি একটি সন্তানের মধ্যে মা ও বাবা দুজনেরই কিছু না কিছু বৈশিষ্ট্য থাকে জন্মগতভাবে। কিন্তু গবেষণার দ্বারা প্রমাণিত সন্তান বুদ্ধি পেয়ে থাকে তার মায়ের থেকে।

সবার মধ্যে একটা কৌতুহল থাকে তাদের সন্তান কার মত হয়েছে মায়ের মতো না বাবার মত। কিন্তু একটি সন্তান আর যাই বৈশিষ্ট্য বাবার থেকে পেয়ে থাকুক না কেন বুদ্ধিমত্তা বিষয়ে কিন্তু মায়ের বুদ্ধিমত্তায় তারা পেয়ে থাকে। ১৯৯৮ সালে ১২ হাজার জনের মধ্যে একটি সমীক্ষা চালানো হয়। সেই সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের বয়স মোটামুটি ২২ বছরের বয়সী ছেলেমেয়েরাই ছিল।

এই গবেষণার মধ্যে দিয়ে দেখা যায় ছেলেমেয়েরা বুদ্ধিমত্তার বিষয়টি তার মার থেকেই পেয়েছে। কারণ গবেষণায় প্রশ্ন হিসেবে সমস্ত কিছুই তাদের জিজ্ঞাসা করা হয় এবং তাদের মায়ের ইতিহাস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়। তার থেকেই এই ফলাফল উঠে আসে যে, স্বভাব বাবার মতো হলেও আইকিউব ও বুদ্ধিমত্তার ভার তাদের মায়ের উপরেই বর্তায়।