হনুমান চল্লিশা যন্ত্র নিয়ে প্রচার, টিভি চ্যানেলের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দিলো হাইকোর্ট

অন্ধবিশ্বাস, কালা জাদু সম্পর্কিত যে কোনো বিজ্ঞাপনী প্রচার চালানো মহারাষ্ট্রে কার্যত আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ! কিন্তু টেলিভিশন চ্যানেলগুলিতে রমরমিয়ে চলছে এই ব্যবসা। এমতাবস্থায় হনুমান চালিশা যন্ত্রের বিজ্ঞাপন দিয়ে জোর বিতর্কের সম্মুখীন হয়েছে চারটি টিভি চ্যানেল। বোম্বে হাইকোর্টের ঔরঙ্গাবাদ বেঞ্চের তরফ থেকে সম্প্রতি মহারাষ্ট্র সরকারকে চার টেলিভিশন চ্যানেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দেওয়া হলো।

বোম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি টিভি নালাওয়াদে এবং বিচারপতি এমজি সেওলিকরের ডিভিশন বেঞ্চের বক্তব্য অনুসারে, বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অন্ধ বিশ্বাসের হয়ে প্রচার চালানোর ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞাপন সংস্থা এবং বিজ্ঞাপনদাতা ওই চ্যানেলগুলি সমান সাজার অধিকারী। এই ধরনের বিজ্ঞাপনের প্রচার চালানো বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবেই গণ্য হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মহারাষ্ট্রের মানব বলিদান এবং অন্যান্য অমানবিক, দুষ্ট ও অঘোরি অভ্যাস এবং কালো জাদু আইন রোধ ও নির্মূলকরণ, ২০১৩ অনুসারে এই ধরনের কর্মকাণ্ডের প্রচার চালানো সম্পূর্ণভাবে বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ। কালা জাদু আইনের তিন নম্বর ধারা বলে এই ধরনের কর্মকাণ্ড এবং তার প্রচার উভয়ই আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ’ হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। ওই চারটি টেলিভিশন সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ, এই ধরনের প্রচার চালিয়ে কার্যত অন্ধবিশ্বাসের স্বপক্ষেই সমর্থন জানাচ্ছে চ্যানেলগুলি।

ঔরাঙ্গাবাদের এক শিক্ষক রাজেন্দ্র অম্বোরের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতেই ওই চ্যানেল গুলির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। তার অভিযোগ ছিল, ভগবানের নামে ব্যবসা চালাচ্ছে ওই বিজ্ঞাপন দাতা সংস্থা এবং টিভি চ্যানেলগুলি এতে উৎসাহ দিচ্ছে। আদালতের তরফ থেকেও জানানো হয়, বিজ্ঞাপনের মোড়কে এভাবে সাধারণ মানুষকে কার্যত ভুল পথে চালনা করা হচ্ছে। এই কর্মকাণ্ড রুখতে বিজ্ঞাপন বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। পাশাপাশি কোন টেলিভিশন সংস্থা যদি এ সম্পর্কে প্রচার চালায় তাহলে তারাও দোষী হিসেবে গণ্য হবে বলে জানানো হয়েছে।