প্রশাসনের থেকেই প্রাণনাশের হুমকি ফোন, দেশ ছাড়তে বাধ্য হলেন পাকিস্তানের প্রথম শিখ অ্যাঙ্কার

দুষ্কৃতীদের থেকে অবিরাম হুমকি পেয়ে এবং তার পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসনের থেকে কোনরকম সাহায্য না পেয়ে শেষমেষ জন্মভিটে ছাড়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলেন পাকিস্তানের প্রথম শিখ টেলিভিশন অ্যাঙ্কার হরমিত সিং। বেশ কয়েকদিন থেকেই ভাইয়ের খুনিদের থেকে হুমকি পাচ্ছেন হরমিত সিং। দুষ্কৃতীরা সরকারি ফোন নাম্বার ব্যবহার করেইতাকে এবং তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের খুন করার হুমকি দিচ্ছে! এমনটাই দাবি করছেন তিনি।

ঘটনার সূত্রপাত গত বছরের জানুয়ারি মাসে। পেশোয়ারের (Peshawar) চামকিনি পুলিশ স্টেশনের কাছে অবস্থিত খাইবার এজেন্সির চেক পয়েন্টের কাছে নিজের বিয়ের বাজার করতে গিয়ে হবু স্ত্রীর প্রেমিক ও তার সঙ্গীর হাতে প্রকাশ্য রাস্তায় খুন হন হরমিতের ভাই রবিন্দর ওরফে পরবিন্দার সিং। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের আদালতে রবিন্দরের হবু স্ত্রী প্রেম কুমারী এবং তার প্রেমিক ইজাজ ও তার সঙ্গী ইব্রাহিম দোষী সাব্যস্ত হয়।

পরে অবশ্য প্রেম কুমারী এবং ইজাজ জামিন পেয়ে গেলেও ইব্রাহিম এখনো জেলেই রয়েছে। এখন দুষ্কৃতীরা সেই মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হরমিতের উপর চাপ সৃষ্টি করছে। অনবরত তাদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। পুলিশ প্রশাসনকে এ সংক্রান্ত বিষয়ে অভিযোগ জানানোর পরেও তাদের তরফ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলেই জানাচ্ছেন হরমিত সিং। সবদিক বিবেচনা করে তাই পরিবার বাঁচাতে দেশত্যাগী হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন হরমিত।

এমন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক মহলে চরম সমালোচনা শুরু হয়েছে। দুষ্কৃতীদের হুমকির মুখে পড়ে দেশ ত্যাগ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন হরমিত এবং তার পরিবার! অথচ প্রশাসন নীরব। হরমিতের এই অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই তাই আন্তর্জাতিক মহলে জোর বিতর্ক শুরু হয়েছে।