করোনায় প্রথম মৃত্যু কুকুরের, ৭ বছর বয়সেই চলে গেলো জার্মান শেফার্ড

সারা বিশ্বের সমস্ত মানব জাতি আজ একটি বড় সংকটের মুখে দাঁড়িয়ে আছে।দিনের-পর-দিন প্রকৃতির ওপর অত্যাচারের ফলস্বরূপ আর করোনা নামক মহামারীর সম্মুখীন হতে হয়েছে তাদের। কিন্তু কি আশ্চর্যের ব্যাপার, মানবজাতি ছাড়া কোন জীবকুল এই মরণ ভাইরাসের থাবার শিকার হয়নি। অবাধে প্রাণখুলে ঘুরে বেড়াচ্ছে সমস্ত জীবকুল, একমাত্র মানবজাতি ছাড়া।কিন্তু সমপ্রতি নিউইয়র্ক এর একটি কুকুরের মৃত্যু হয়েছে এই মহামারীর ফলে।

সংবাদমাধ্যম ন্যাশনাল জিওগ্রাফি তরফ থেকে জানা গেছে মৃত কুকুরটির নাম ছিল বাডি, গত এপ্রিল মাস থেকেই অসুস্থ ছিল সে।গত এপ্রিল মাস থেকে কুকুরটির মালিক করোনা তে আক্রান্ত হয়েছিলেন, কিন্তু ধীরে ধীরে তিনি সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন, এরপর আক্রান্ত হয় এই কুকুরটি। মালিক সুস্থ হয়ে গেলেও কুকুরটির অবস্থায় ধীরে ধীরে অবনতি হয়। সে সঙ্গে তার শরীরে পাওয়া যায় করোনাভাইরাসের জীবাণু।

ধীরে ধীরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় কুকুরটির। প্রথমে নাকি ঘন সর্দি জমতে থাকে, শ্বাসকষ্ট শুরু হয় তার, এরপর হঠাৎ করে রক্ত বমি শুরু হয়ে যায়, প্রস্রাবে রক্ত পাওয়া যায়, শেষ পর্যন্ত হাঁটতে তার খুব অসুবিধা হতো।এসমস্ত শারীরিক অসুস্থতার জন্য সম্প্রতি এই কুকুরটি মারা যায়। মারা যাবার পর জানা যায় যে তার শরীরে করোনাভাইরাস ছাড়াও ছিল লিম্ফোমা (এক ধরণের ক্যান্সার)।

কুকুরটি শরীরের ময়নাতদন্ত করা হলেও তার আগেই তার শরীরকে দেহ পুড়ে গিয়েছিল তার পরিবার। ইতিমধ্যেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১২টি কুকুর, ১০টি বিড়াল, ১টি বাঘ ও ১টি সিংহ করোনায় আক্রান্ত৷ তবে পশুদের শরীর থেকে এখনো পর্যন্ত এই ভাইরাসের সংক্রমনের কথা জানা যায়নি। তবে যে ক’টি পশু আক্রান্ত হয়েছে তারা সকলেই মানব শরীর থেকে এই ভাইরাস পেয়েছে বলেই ধারণা করা হয়েছে।