বিয়ে বাড়িতে রু’দ্ধ’শ্বা’স অভিযান চালিয়ে বি’পা’কে প’ড়ে পদ থেকে সরে দাঁ’ড়া’লে’ন জেলা শাসক

দেশে সংক্রমণ যে হারে বেড়ে চলেছে তাতে দেশে সম্পূর্ণভাবে লকডাউন চালু না হলেও বেশকিছু রাজ্যে কিন্তু বিশেষ কড়াকড়ি শুরু হয়েছে। এই পর্যায়ে মহারাষ্ট্র, কেরালা, দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গসহ দেশের বেশ কিছু রাজ্যে নাইট কারফিউ, আংশিক লকডাউন, ১৪৪ ধারা শুরু হয়েছে। প্রশাসনের উদ্যোগে রাজ্যগুলিতে সরকারের আদেশ কঠোরভাবে পালন করা হচ্ছে। নিয়ম নিষেধাজ্ঞা পালনের দায়ভার নিয়েছে পুলিশ।

তবে সেই দায়ভার নিতে গিয়েই কার্যত বিপাকে পড়লেন ত্রিপুরার জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব। সম্প্রতি ত্রিপুরায় নাইট কারফিউর নিয়ম নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে একটি বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠান আয়োজন করার অভিযোগের ভিত্তিতে বিয়ে বাড়িতে তাণ্ডব চালায় পুলিশ। এই কর্মকান্ডের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব। প্রশাসনের নির্দেশ পালন করতে গিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় জোর সমালোচিত হয়েছেন তিনি।

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার যাদব এরপর এই ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেন। এই তদন্তের জন্য দুই সদস্যের কমিটি গঠন করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। নিরপেক্ষ তদন্তের স্বার্থে তাই এবার আপাতত নিজের পথ থেকে সরে দাঁড়ালেন শৈলেশ কুমার যাদব। প্রসঙ্গত, শৈলেশ কুমার যাদবের নেতৃত্বে ঐদিন ত্রিপুরার ‘মাণিক্য কোর্ট’ নামের একটি বিয়ে বাড়িতে বিয়ে বন্ধ করার মিশনে নামে পুলিশ।

তবে বিয়ের অনুষ্ঠান বন্ধ করতে গিয়ে বিয়ের অনুমোদনপত্র ছিঁড়ে ফেলেন শৈলেশ কুমার যাদব। পুরোহিতসহ আরো বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। অতিথিদের বিরুদ্ধে বল প্রয়োগের অভিযোগ ওঠে পুলিশের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি ওই এলাকায় দুটি বিয়েবাড়িও এক বছরের জন্য সিল করে প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রীর থেকে নির্দেশ পেয়ে ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে দুই সদস্যের কমিটি।