সি’দ্ধা’ন্ত চূড়ান্ত, পুনর্গণনার আ’বে’দ’ন জা’না’বে বিজেপি: দিলীপ ঘোষ

নন্দীগ্রাম-সহ রাজ্যের পাঁচটি বিধানসভা আসনে ভোট পুনর্গণনার দাবি তুলেছে তৃণমূল। কলকাতা হাইকোর্টের কাছে এই মর্মে আবেদন জানিয়েছে রাজ্য শাসকদল। বুধবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তরফ থেকে কলকাতা হাইকোর্টে নন্দীগ্রামের পুনর্গণনার মামলা দায়ের করা হয়েছে। আর ঠিক তার পরেই নড়েচড়ে বসেছে বিজেপি। তৃণমূলের তরফ থেকে ভোটের পুনর্গণনার দাবি জানানোর পরেই বিজেপি এবার ভোট গণনার আবেদন জানাতে চলেছে।

শনিবার রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, বিজেপি একুশের বিধানসভা নির্বাচনে যে কয়টি আসনে তৃণমূলের থেকে অত্যন্ত কম ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে, সেই সকল আসনের পুনর্গণনার দাবি জানানো হবে। বহরমপুরে চা-চক্রে অংশগ্রহণ করে কোথায় কিভাবে আবেদন জানানো হবে সে সম্পর্কে আইনজীবীদের সঙ্গে আলোচনা সেরে ফেলেছেন তিনি।

খুব তাড়াতাড়িই হাইকোর্টে এবার বিজেপি নিজেদের দাবি জানাবে বলে জানিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। নিয়ম অনুসারে ফল ঘোষণার পর পুনর্গণনা নিয়ে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করতে হয়। এই আবেদন করার ঠিক ৪৫ দিনের মধ্যেই পুনর্গণনার আবেদন জানাতে হয় আদালতের সাংবিধানিক বেঞ্চে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন জানিয়ে ফেলেছেন। এবার সেই পথে এগোবে বিজেপি।

নন্দীগ্রামের পাশাপাশি ময়না, বনগাঁ দক্ষিণ, গোঘাট ও বলরামপুরের তৃণমূল প্রার্থীরাও কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন সঠিক বিচারের আশায়। একুশের ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই ইভিএম নিয়ে অভিযোগের আঙুল তুলতে থাকেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। অপরপক্ষে নন্দীগ্রামের ফলাফল নিয়েও বিজেপির বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগ তুলতে থাকেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত বুধবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।