শ্রমবিধি লাগু হওয়ার দিন পিছিয়ে গেলো! এখনই কমছে হাতে পাওয়া বেতন

পয়লা এপ্রিল নতুন অর্থবছরের প্রথম দিন। এই দিন থেকেই নতুন শ্রমবিধি আইন লাগু হওয়ার কথা ছিল। তবে এই আইন কিন্তু বেসরকারি সংস্থানের কর্মচারীদের জন্যে খুব একটা সুবিধাজনক হবে না। কারণ এতে তাদের বেতন ক্রমে ঘাটতি দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে আপাতত স্বস্তিতে রয়েছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা। কারণ পয়লা এপ্রিল থেকে এই নতুন আইন লাগু হয় নি।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের তরফ থেকে যে নতুন শ্রমবিধি আইন লাগু করার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল তাতে পয়লা এপ্রিল থেকে টেক হোম সালারির পরিমাণ কমে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। কেন্দ্রের নতুন বেতন আইন অনুসারে প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের জন্য বেতনের প্যাকেজ রি-স্ট্রাকচার বা পুনর্গঠন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এই সিদ্ধান্ত অনুসারে, বেসিক পে বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে কার্যত গ্র্যাচুইটি, প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা কাটার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই মাসিক স্যালারির পরিমাণ কমবে। বেতন প্যাকেজের পুনর্গঠনে অ্যালাওয়েন্স কম্পোনেটের পরিমাণ সর্বমোট বেতনের থেকে ৫০ শতাংশ কম রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এতে প্রতিমাসে বেতনের পরিমাণ কমলেও অবশ্য সঞ্চয় বাড়বে। যাতে রিটায়ারমেন্টের সময় সুবিধা পাবেন কর্মচারীরা। তাদের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত হবে। তবে আপাতত এই নিয়ম চালু হচ্ছে না। তাই টেক হোম স্যালারির পরিমাণ কমার সম্ভাবনা নেই।