করোনার দাপটে বন্ধ বিয়ের অনুষ্ঠান, 100 কিমি পথ সাইকেলে স্ত্রীকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন পাত্র

গোটা দেশ জুড়ে করোনা মোকাবিলার জন্য লকডাউনে চলছে। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের হওয়া নিষেধ। লকডাউন চলাকালীন উত্তরপ্রদেশের এক যুবক ১০০ কিলোমিটার সাইকেলে করে পারি দিলেন বিয়ে করার জন্য। উত্তরপ্রদেশের হামিরপুরের বাসিন্দা ওই যুবক, নাম কালকু প্রজাপতি। করোনার জেরে লকডাউনের অনেক আগেই বিয়ে ঠিক হয়েছিল, পাত্রীর নাম রিঙ্কি। তবে লকডাউন বেড়ে যাওয়ার বলে পিছিয়ে যায় কালকু এবং রিঙ্কির বিয়ের তারিখ।

তাই অপেক্ষা না করে ১০০ কিলোমিটার সাইকেল পারি দিয়ে মোহাবা জেলার পুনিয়া গ্রামে রিঙ্কির বাড়ি যায় কালকু। কালকু জানান, তিনি বিয়ে করার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি পাচ্ছিলেন না। তাই সাইকেলে করে যাওয়া ছাড়া তাঁর কাছে কোনও উপায় ছিল না। তাঁদের বিয়ের কার্ডও আত্মীয়দের মধ্যে বিলি করা হয়ে গিয়েছিল। তাই নির্ধারিত দিনে বিয়ে করার প্রয়োজন ছিল।জানা গিয়েছে, দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনার পর কালকু তাঁর বাবার সঙ্গে চাষের কাজ শুরু করেন।

প্রায় ৫ মাস আগেই এই বিয়ের সমস্ত আয়োজন করা হয়েছিল। তাই বিয়ের দিন রিঙ্কির পরিবারের তরফ থেকে কালকুকে ফোন করা হলে তিনি সাইকেল চালিয়েই বিয়ে করতে হাজির হন। কালকু বলেন, তাঁর বাইক থাকলে ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় সাইকেল চালিয়েই হাজির হন। তবে লকডাউনের নিয়ম মেনে মুখে রুমাল বেধে গোটা পথ সাইকেল চালিয়েছেন বলে জানান তিনি। গ্রামের একটি মন্দিরে বিয়ের আয়োজন করা হয়।

পাত্রী-পাত্রী দুজনেই বিয়ের সময় মুখ ঢেকেই বসেছিলেন। কালকু আরও জানিয়েছেন, বাড়ি ফিরে প্রচন্ড পায়ের ব্যথায় ভুগেছিলেন। ঘুমিয়েও স্বপ্নের ঘোরে মনে হচ্ছে সাইকেল চালাচ্ছেন। তাঁর মা প্রচন্ড অসুস্থ থাকায় আমায় তাড়াহুড়ো করে বিয়ে করতেই হল। তাঁর স্ত্রী থাকলে মাকে দেখার কেউ থাকবে।