মোটা মানুষদের শরীরে ক’রোনা ভ্যা’কসিন কাজ নাও করতে পারে, আশঙ্কা গবেষকদের

যাদের শরীর একটু ভারীর দিকে, করোনা মহামারীর প্রকোপে তাদেরই ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এই তথ্য অনেক আগেই প্রকাশ করেছিলেন গবেষকেরা। তবে এর থেকেও ভয়ানক যে তথ্য সম্প্রতি প্রকাশ করলেন গবেষকেরা তাতে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে চিকিৎসক মহলে। গবেষকরা জানাচ্ছেন, করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কৃত হলেও তা যে বেশি ওজনের মানুষের শরীরে প্রতিরোধ গড়ে তুলবেই, এমন কোনো সম্ভাবনা নেই।

ইউএস নর্থ ক্যারোলিনা বিশ্ববিদ্যালয় কমিশন সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিন, ফ্রান্স ও ইতালি-সহ নানা দেশ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে এই উদ্বেগজনক রিপোর্ট পেশ করেছে। তাদের দাবি, গবেষণা করে দেখা যাচ্ছে নতুন আবিষ্কৃত করোনার ভ্যাকসিন মোটা মানুষদের শরীরে যথাযথ ভাবে কাজ না করার সম্ভাবনাই বেশি। গবেষণা রিপোর্টে আরো বলা হয়েছে, একজন মোটা মানুষের করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার প্রবণতা অন্যদের তুলনায় প্রায় ৪৮ শতাংশ বেশি।

সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির ওজন যদি বেশি হয়, তাহলে তার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় ১১৩ শতাংশ বেড়ে যায়। শুধু তাই নয়, তাদের ইনটেনসিভ কেয়ারে ভর্তি হওয়ার সম্ভাবনাও প্রায় ৭৪ শতাংশ বেশি থাকে। এই গবেষক দলের প্রধান তথা ইউএস নর্থ ক্যারোলিনা বিশ্ববিদ্যালয় কমিশনের অধ্যাপক ব্যারি পপকিন জানিয়েছেন, মোটা মানুষের ক্ষেত্রে করোনার প্রভাব যতটা ভয়াবহ মনে করা হচ্ছে, পরিস্থিতি কিন্তু তার থেকেও অনেক বেশি গম্ভীর।

উল্লেখ্য, মোটা ব্যক্তিদের শরীরে অন্যান্য বিভিন্ন রোগ বাসা বাঁধে। যেমন, হৃদরোগ, টাইপ ২ ডায়াবেটিস, ইনসুলিন প্রতিরোধের এবং প্রদাহের মতো শারীরিক সমস্যা গুলিতে রোগাদের তুলনায় মোটা মানুষেরাই বেশি ভোগেন। এছাড়াও মোটা মানুষেরা স্লিপ অ্যাপনিয়ার মতো এক ধরনের পালমোনারি হাইপারটেনশনের সমস্যায় ভোগেন। এর উপর যদি মারণ ভাইরাস করোনা আক্রমণ করে, তাহলে রোগীদের অবস্থা আরও বেশি গম্ভীর হয়ে ওঠে। গবেষকদের এই তথ্যে স্বভাবতই স্থূলকায়দের উদ্বেগ আরো বাড়লো।