সন্তানের জ’ন্ম প্রাকৃতিক! হস্তক্ষেপ করা উচিত নয়, জনসংখ্যা নি’য়’ন্ত্র’ণে মন্তব্য ইউপি-র সাংসদের

অসমের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা সম্প্রতি সেই রাজ্যের দুই সন্তান নীতি চালু করার কথা বলেছেন। এই নীতি লাগু হলে দুই সন্তানের বেশি সন্তান নিলে রাজ্যবাসী সরকারি প্রকল্পের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন। অসম সরকারের এই উদ্যোগের বিরোধিতা করতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহল। এবার উত্তর প্রদেশের সম্ভল থেকে সমাজবাদী পার্টির সাংসদ শফিকুর রহমান বার্ক এ সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন।

তার অভিযোগ, ভোট আসছে বলে বিজেপি ঘৃণার রাজনীতি ছড়িয়ে দিচ্ছি চারিদিকে। হিন্দু মুসলিমের মধ্যে বিভেদ করানোর চেষ্টা করছে বিজেপি। তিনি আরো বলেছেন, বেশি ভোট পাওয়ার লোভেই এমন উদ্যোগ গ্রহণ করছে বিজেপি। তবে তিনি মনে করেন এতে অবশ্য বিজেপির কোন লাভ হবে না। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ আইন নিয়ে তার বক্তব্য, এটি একটি প্রাকৃতিক বিষয়। জীবন-মৃত্যু ভগবানের হাতে রয়েছে।

তার দাবি, আল্লাহ সবাইকে জন্ম দিয়েছেন। তাই সকলের জীবন মৃত্যু তার হাতে রয়েছে। কত সন্তানের জন্ম হবে তার প্রকৃতির উপর নির্ভর করছে। প্রাকৃতিক সেই বিষয়ে মানুষের হস্তক্ষেপ করা উচিত নয় বলে তিনি মনে করেন। অসমের পর উত্তর প্রদেশের পঞ্চায়েত মন্ত্রী চৌধুরী ভুপেন্দ্র সিংহ বলেছিলেন, বর্ধিত জনসংখ্যার দেশের উন্নয়নের পক্ষে বাধাস্বরূপ। দেশের বেশিরভাগ গুরুতর সমস্যার কারণ হিসেবে তিনি দেশের জনসংখ্যাকেই দায়ী করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী আর মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে সাধারণ মানুষের চাহিদা পূরণের কাজ করছেন উত্তরপ্রদেশের পঞ্চায়েত। তবে দেশের ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা দেশের বিপদ বাড়াচ্ছে। এবার জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করা উচিত বলেই তার দাবি। অসমের পর এবার উত্তরপ্রদেশেও দুই সন্তান নীতি চালু হতে চলেছে বলে অনুমান করা হচ্ছে।