বিয়ের বয়স পাল্টে যেতে পারে, ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন মোদি, তাকিয়ে গোটা দেশ

ফাইল ছবি

ভারতে মেয়েদের বিয়ের বয়স সংক্রান্ত নতুন নিয়ম কার্যকর হতে চলেছে। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির বক্তব্য থেকে অন্তত তারই ইঙ্গিত পাওয়া গেল। শুক্রবার, খাদ্য এবং কৃষি সংস্থার ৭৫ তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে দেশবাসীর উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তখনই তিনি জানালেন, ভারতের মেয়েদের বিয়ের বয়স কত হওয়া উচিত, সে সম্পর্কে আলোচনা করছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিকরা।

এদিন ভাষণ দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশজুড়ে মহিলারা বিয়ের বয়স পিছোনোর পক্ষেই সওয়াল করছেন। মহিলাদের তরফ থেকে তার কাছে প্রায়ই এরকম অনেক চিঠি আসছে। যেখানে, এ বিষয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করছেন তারা। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য অনুসারে, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এখন এ সংক্রান্ত সমস্ত রিপোর্ট খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী জানালেন, সমস্ত রিপোর্ট বিবেচনার পরেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে কেন্দ্রীয় সরকার। উল্লেখ্য, চলতি বছরের বাজেট পেশ করার সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন মহিলাদের বিয়ের বয়স বাড়ানোর পক্ষে সওয়াল করেছিলেন। তার বক্তব্য অনুসারে, বর্তমানে মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ বছর এবং ছেলেদের ক্ষেত্রে তা ২১ বছর নির্ধারিত আছে। বাজেট অধিবেশনে মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ বছর থেকে বাড়ানোর দিকেই সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন তিনি।

১৮ বছর পূর্ণ হয়ে গেলেই বেশিরভাগ পরিবারের তরফ থেকে মেয়েদের বিয়ে দিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ফলে মেয়েটির উচ্চশিক্ষা বাধাপ্রাপ্ত হয়। এমতাবস্থায় বিয়ের বয়স বাড়িয়ে যদি মেয়েদের উচ্চ শিক্ষিত করে তুলে তাদের স্বাবলম্বী করে তোলার দিকে আগ্রহ বাড়ানো যায়, তাহলে মহিলারা উপকৃত হবেন বলেই মনে করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। বর্তমানে এই বিষয়ে আলোচনা চলছে। শীঘ্রই কেন্দ্রের তরফ থেকে এ সংক্রান্ত কোন নির্দেশিকা প্রকাশিত হবে বলে মনে করা হচ্ছে।