আরো কমবে তাপমাত্রা, বছরের শেষ ও নতুন বছরের প্রথম দিন কাঁপবে বাংলা, সতর্কতা জারি হাওয়া অফিসের

কনকনে শীতের মধ্যেই নতুন বছরের অভ্যর্থনার প্রস্তুতি নিচ্ছে আসমুদ্র হিমাচল। চলতি সপ্তাহে শুরু থেকেই শীতের দাপটে কাঁপছে সারাদেশ। উত্তরে হিমালয়ের চরম শৈত্যপ্রবাহ এবং তুষারপাতের দরুন সারাদেশ শীতের কামড় বেশ টের পাচ্ছে। আবহাওয়া বিশারদরা জানাচ্ছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে তাপমাত্রার পারদ উপর দিকে চড়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। বরং শীতের প্রভাব উত্তরোত্তর বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে।

উত্তর ভারতের রাজ্যগুলি প্রবল শীতে কাঁপছে। সৌজন্যে জম্বু-কাশ্মীর এবং হিমালয়ের প্রবল তুষারপাত। যে কারণে আগামী দুই দিনে উত্তর-পূর্ব এবং মধ্য ভারতের রাজ্যগুলিতে তাপমাত্রার পারদ আরো দুই ডিগ্রি নিচের দিকে নামবে বলে আগাম জানানো হয়েছে। তবে ৩১শে ডিসেম্বরের পর থেকেই অবশ্য অন্তত ৩-৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা বাড়তে পারে, তবে কোল্ড ওয়েভের হাত থেকে অবশ্য এখনই নিস্তার মিলবে না, এমনটাই জানাচ্ছে আইএমডি।

এদিকে উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি যেমন পঞ্জাব, হরিয়ানা, চন্ডীগড়, দিল্লি ও উত্তরাখণ্ডের একাধিক অংশ আগামী তিন দিন ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন থাকবে বলে আগাম পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। উত্তর প্রদেশ এবং রাজস্থানেও ঘন কুয়াশার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমে গিয়ে ৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছেছে।

উত্তর-পূর্ব ভারতের পাশাপাশি আগামী 24 ঘন্টার মধ্যেই মধ্য ভারতের রাজ্যগুলির তাপমাত্রার পারদ নিচের দিকে নামবে বলে জানানো হয়েছে। উত্তর প্রদেশ এবং মধ্য প্রদেশের তাপমাত্রা কমে গিয়ে ৪ ডিগ্রী সেলসিয়াসে পৌঁছে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে বিহার, ঝাড়খন্ড, উড়িষ্যা এবং পশ্চিমবঙ্গেও আগামী বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার তাপমাত্রার পারদ ২-৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস পর্যন্ত নামতে চলেছে। ফলে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে রীতিমতো শৈত্যপ্রবাহের আগাম পূর্বাভাস জানানো হয়েছে।