প‌িছু করে এক মাসে আট বার সাপ কামড়েছে কিশোরকে, অবাক গ্রামবাসী

পুরনো হিন্দি সিনেমা ঘাটলে দেখতে পাওয়া যাবে যে, কোন সাপ যদি কোনো মানুষের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেবার কথা ভেবে থাকে, তাহলে সেই মানুষ পৃথিবীর যে কোনো স্থানে লুকিয়ে থাকুক না কেন, সেই সাপটি তাকে ঠিক খুঁজে বের করে প্রতিশোধ নেয়। এমনই একটি কাণ্ড ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বস্তি জেলার এক গ্রামে। সেখানে গত এক মাসে একটি সাপ একটি কিশোরকে মোট আটবার কামড়েছে। চমকে যাওয়ার মতো ঘটনা হলেও একেবারেই সত্যি এটি। তবে প্রতিবারই কপাল জোরে বেঁচে গেছে সেই কিশোরটি। রামপুর গ্রামের যশরাজ মিশ্রণ নামে এই কিশোরটিকে ফের আরও একবার গত সপ্তাহে কামড় দিয়েছে সেই সাপটি।

কিন্তু হঠাৎ একটি কিশোরকে বারবার সাপ ছোবল মারতে আসবে কেন? স্বাভাবিকভাবেই এই প্রশ্নটিই ঘোরাফেরা করছে কিশোরীর পরিবার থেকে শুরু করে গ্রামবাসীদের মনে। কিশোরীর পরিবার এবং গ্রামবাসীদের বক্তব্য, কোন দৈবিক কারণে হয়তো সেই সাপটি বারবার কিশোরটিকে কামড়াতে আসছে। কোন সময় হয়তো সেই কিশোরটি আঘাত করে ফেলেছিল সেই সাপটিকে। তাই হয়তো বারবার তার ক্ষতি করতে ফিরে আসছে এই সরীসৃপ। চিকিৎসকেরাও এই বিষয়ে কোন বিধান দিতে পারছেন না।

শেষ পর্যন্ত পরিবারের লোকজন এবং গ্রামবাসী সকলে মিলে এই কিশোরটিকে নিয়ে গেছেন ওঝার কাছে। কিশোরগঞ্জ যশরাজের বাবা চন্দ্রমৌলি মিশ্র জানিয়েছেন যে,” পরপর তিনবার আমার ছেলেকে সাপটি কামড়ানোর পর বিষয়টা নিয়ে আমাদের চিন্তা অনেকটাই বেড়ে যায়। ছেলেকে দূরের গ্রাম বাহাদুরপুরে একটি আত্মীয়র বাড়িতে রেখে আসা হয়। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো, সাপটি সেখানেও ছেলের পিছন পিছন চলে যায়। সাপটিকে দেখে ভয় পেয়ে পালাতে গিয়ে কামড় খায় ছেলে”। কিশোরটি শেষ এই সাপটির কামড় খেয়ে ছিল গত ২৫ আগস্ট।

অষ্টম বার সাপের ছোবল খাবার পরে রীতিমতো উদ্বিগ্ন তার পরিবারের লোক সহ গ্রামবাসী। এরপর তাকে চিকিৎসককে দেখানোর পাশাপাশি নিয়ে যাওয়া হয় ওঝার কাছে। সেখানে তাকে ঝাড়ফুঁক করানো হয়।
ছেলেটির বাবার বক্তব্য, “আমরা বুঝতে পারছি না কেন বারবার আমার ছেলেকেই টার্গেট করছে ওই সাপটি। মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে যশরাজ। স্বাভাবিক ভাবেই সব সময় সে সাপের ভয় পাচ্ছে। তার জন্য সাপের পূজা দেওয়ার থেকে শুরু করে ওঝার কাছে ঝাড়ফুঁক করা, কিছুই বাদ দেয়নি তার পরিবারের লোকজন। কোন কিছুতেই কোন ফল পাওয়া যাচ্ছে না। ফের আবার কবে ওই কিশোরকে ছোবল মারবে সেই সাপ, এই চিন্তায় দিন রাত কাটাতে হচ্ছে কিশোর সহ তার পরিবারকে।