ঋণ মেটাতে সোনার গহনা ছিনতাই, অভিযোগে গ্রেফতার “তারক মেহেতা” খ্যাত অভিনেতা

আমরা রুপোলী জগতে যাদের দেখি তাদের জীবন অনেকটাই আলাদা হয় বাস্তবে। রুপোলি পর্দায় যাদের দেখা যায় হাসিমুখে, তার বাস্তব জীবনে ততটাও সুখে বসবাস করেন না। এই কথাটাই যেন আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গেল অভিনেতা মিরাজ কাপ্রির প্রসঙ্গে। তারাক মেহেতাকা উলটা চশমা, এই সিরিয়ালে অভিনয় করেন মিরাজ। সম্প্রতি চুরি এবং ছিনতাই বাজি করার জন্য তাকে গ্রেফতার করে সুরাট পুলিশ। এই কাজে তাকে সঙ্গ দেয় তার বন্ধু বৈভব। না কোন সিনেমার প্লটের কথা বলছি না। একেবারে বাস্তব একটি ঘটনা বলছি। জনপ্রিয় ধারাবাহিকের এই বিখ্যাত অভিনেতা অভিনয় করেছেন মেরে আঙান মে, থাপকি পেয়ার কি, মতো একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিকে।

পুলিশ সূত্র থেকে জানা গেছে যে, বৈভব এবং মিরাজ সাধারন কোন বয়স্ক মহিলাকে ছিনতাই করার জন্য লক্ষ্য রেখেছিল। মিরাজ জুনাগর এর বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি ছিলেন মুম্বাইয়ের আন্ধেরি অঞ্চলে। ফিটনেস প্রশিক্ষণের কাজ করতেন তিনি। এ ছাড়াও অভিনয় জগতে যুক্ত ছিলেন তিনি।

কিন্তু এক সময় তিনি জুয়ায় আসক্ত হয়ে পড়েন। এরপরে জীবনের স্বাভাবিক ছন্দ হারিয়ে যায় তার। ক্রিকেট বেটিংয়ে হেরে গিয়ে 30 লক্ষ টাকা খুইয়ে ছিলেন এই অভিনেতা। সেই দেনা মেটাতে না পারায় অন্য কোন বিকল্প পথ বেছে নেবার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই পথ যে এত ভয়ঙ্কর হবে তা হয়তো তিনি নিজেও জানতেন না।

অভিযুক্তদের কাছ থেকে উদ্ধার করা গেছে আড়াই লক্ষ টাকার স্বর্ণ এবং রুপোর গয়না, সঙ্গে একটি মোটরসাইকেল। তারা দুইজনই তাদের অপরাধের কথা স্বীকার করে নিয়েছে। বর্তমানে তারা রয়েছেন জেলহাজতে। খুব তাড়াতাড়ি তাদের কোর্টে তোলা হবে বলে জানা গেছে।