পুজোয় দূরত্ববিধি বজায় রেখে দেখতে হবে ঠাকুর, মণ্ডপের সামনে দাগ কাটলেন মুখ্যমন্ত্রী

আর মাত্র কয়েকটা দিন পরেই বাঙ্গালীদের সর্বশ্রেষ্ঠ উৎসব উপলক্ষে মেতে উঠবে। এখন থেকেই রাজ্যজুড়ে তার প্রস্তুতি তুঙ্গে। তবে উৎসবের আনন্দে মেতে ওঠা বাঙালি যাতে করোনা সংক্রমনের ঊর্ধ্বমুখী হারের কথা ভুলে না যায়, সে সম্পর্কে বারবার সতর্ক করছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার রাজ্যের একটি পুজোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গিয়ে আবারো রাজ্যবাসীকে সতর্ক করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

শুক্রবার, বেহালা ও দক্ষিণ কলকাতার একাধিক পুজো মন্ডপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। বেহালার বড়িশা ক্লাবে পুজার উদ্বোধন করতে গিয়ে দর্শনার্থীদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য নিজেই রাস্তায় গোল দাগ কেটে দেন তিনি। উল্লেখ্য, লকডাউন শুরুর দিকেও কলকাতার বাজারে গিয়ে সেখানকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার পর রাস্তায় এভাবেই গোল দাগ কেটে দিয়েছিলেন তিনি।

বাজার করতে আসা প্রতিটি মানুষের মধ্যে যাতে নির্দিষ্ট এক মিটারের দূরত্ব থাকে তা নিশ্চিত করতে নিজের হাতে রাস্তায় গোল দাগ কেটে দিয়েছিলেন তিনি। এবার আবারো পূজো উপলক্ষে রাজ্যবাসীর মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার সতর্কতামূলক ব্যবস্থাটিকে নিশ্চিত করতে চাইলেন তিনি। উল্লেখ্য, বড়িশা ক্লাবের পুজোর থিম এবার করোনার বিরুদ্ধে লড়াই।

বড়িশা ক্লাবের পুজোর থিমে এবার জনসচেতনতা মূলক কার্যকলাপ হিসেবে মাস্ক পড়ার দিকে জোর দেওয়া হয়েছে। পুজো উদ্যোক্তাদের দাবি, তাদের এই থিম এবং পুজোর আয়োজন মুখ্যমন্ত্রীর খুব পছন্দ হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী তাদের উদ্যোগের ভূয়শী প্রশংসা করেছেন। বড়িশা ক্লাব ছাড়াও এদিন কলকাতার নতুন দল, অজেয় সংহতি, ৪১ পল্লি, খিদিরপুরের দুটি পুজো, দক্ষিণ কলকাতার হিন্দুস্থান পার্ক ও কালীঘাট মিলন সঙ্ঘের পুজোর উদ্বোধন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।