আগামী বছর কমতে পারে মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের সিলেবাস

করোনা মহামারীর জেরে দীর্ঘ ছয় মাস ধরে বন্ধ রয়েছে স্কুল-কলেজ সহ অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি। রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুসারে আগামী ২০শে সেপ্টেম্বর অব্দি বাংলার সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায়, ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন পড়ুয়ারা। এমতাবস্থায়, ২০২১ সালের মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়েও বেশ চিন্তিত স্কুল শিক্ষা দপ্তর।

করোনা মহামারীর জেরে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের সিলেবাস কমানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে স্কুল শিক্ষা দপ্তর। তবে, শিক্ষাবিদদের একাংশের দাবি, যদি মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের সিলেবাস কমানো হয়, তাহলে পরবর্তী ক্ষেত্রে সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষা দিতে গিয়ে বেজায় বিপাকে পড়বেন ছাত্র-ছাত্রীরা। এদিকে প্রতিবছর মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল প্রকাশের দিনেই পরবর্তী বছরের পরীক্ষার দিন ঘোষণা করা হয়।

তবে মহামারীর পরিস্থিতিতে, এখনো অব্দি ২০২১ সালের মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার দিন ধার্য করে উঠতে পারেনি মধ্য এবং উচ্চ শিক্ষা পর্ষদ। এ সম্পর্কে পর্ষদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী বছর বিধানসভা ভোট রয়েছে। তাই ফেব্রুয়ারি মাসেই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। তবে, বর্তমানে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়ায় আলোচনা স্থগিত রয়েছে।

তবে সমস্যার সমাধানে শিক্ষক সংগঠন বিজিটিএ’র সাধারণ সম্পাদক সৌরেন ভট্টাচার্য রাজ্য সরকারের কাছে প্রস্তাব রেখেছেন, শিক্ষাবর্ষ পিছিয়ে এপ্রিল থেকে মার্চ মাস করা হোক। বর্তমানে রাজ্যে জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর মাস অব্দি শিক্ষাবর্ষ চালু আছে। শিক্ষাবর্ষ পেছালে সম্পূর্ণ সিলেবাসেই পরীক্ষা দিতে পারবেন ছাত্রছাত্রীরা। তাহলে আর সর্বভারতীয় প্রবেশিকা পরীক্ষার ক্ষেত্রে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হবে না।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন