‘খুন হননি, আত্মহত্যাই করেছিলেন সুশান্ত’, তথ্য প্রকাশ করল এইমসের চিকিত্‍সক দল

দীর্ঘ চার মাস পর অবশেষে সমস্ত জল্পনার অবসান হল। দিল্লির এইমসের ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা সমস্ত তথ্য প্রমাণ খতিয়ে দেখে জানিয়ে দিলেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত খুন হননি। বিষক্রিয়ায় বা শ্বাস রোধের মাধ্যমে কেউ তাকে খুন করেনি। তিনি আত্মহত্যাই করেছেন। এইমসের বিশেষজ্ঞরা সিবিআইয়ের কাছে এই রিপোর্ট পেশ করেছেন। ফলে, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে আর কোনো সন্দেহের অবকাশ রইল না।

উল্লেখ্য, গত ১৪ই জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়। মুম্বাই পুলিশ প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার তত্ব প্রদান করলেও বিরোধিতা করতে শুরু করে সুশান্ত অনুরাগীরা। সুশান্ত আত্মহত্যা করেননি, বরং তাকে খুন করা হয়েছে, এই দাবিতে উত্তাল হয়ে ওঠে নেট দুনিয়া। পাশাপাশি, সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে নাম জড়াতে থাকে বলিউডের তাবড় তাবড় সেলিব্রেটিদের।

সুশান্তের পরিবারের তরফ থেকেও দাবি করা হয়, তাকে খুন করা হয়েছে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনার তদন্তের ভার পড়ে সিবিআই পুলিশের হাতে। দিল্লির এইমসের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান সুধীর গুপ্তার নেতৃত্বে চারজনের বিশেষজ্ঞ দল ঘটনার তদন্তে সিবিআইকে সাহায্য করেন। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট থেকে জানা গেল, সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট খতিয়ে দেখে সন্দেহজনক কিছু পাননি তারা।

ঘটনার তদন্তে নেমে একাধিকবার ক্রাইম সিন খতিয়ে দেখেছে সিবিআই। বারবার ঘটনার পুনঃ নির্মাণ করেও সন্দেহজনক কিছু আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি। পাশাপাশি, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্য মামলার তদন্তের জন্য তার প্রেমিকা তথা মডেল অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী সহ ২৭ জনকে জেরা করা হয়েছে। তাদের বয়ান থেকেও সন্দেহজনক কিছু মেলেনি বলেই জানা গেছে। এমনকি তদন্তের স্বার্থে সুশান্তের ল্যাপটপ, মোবাইল, ক্যামেরা, হার্ড ড্রাইভও বাজেয়াপ্ত করে সিবিআই। সেগুলিকে খতিয়ে দেখেও সন্দেহজনক কিছু মেলেনি।