দিশার মৃত্যুর পর থেকেই খাওয়া কমে গিয়েছিল সুশান্তের, হঠাৎ দাবি করে বসলো রাঁধুনি

এতদিনে একটি কথার সকলেই বুঝতে পেরেছে যে, প্রাক্তন ম্যানেজার মৃত্যুর পর রীতিমতো জীবন থমকে গেছিল সুশান্তের। দিশার মূত্রের সঙ্গে কোনো না কোনোভাবে সুশান্তের মৃত্যুর একটি যোগসুত্র অবশ্যই রয়েছে। দিশার মৃত্যুর আগে সুশান্ত সঙ্গে নিশ্চয়ই কোন এমন কথাবার্তা হয়েছে যার ফলে  সুশান্ত রীতিমতো চিন্তায় ছিলেন।মাত্র এক সপ্তাহ আগেই মৃত্যু হয়েছিল সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজারের।

এরইমধ্যে একটি বেসরকারি সংবাদসংস্থাকে সুশান্তের রাধুনী বলেন যে,”স্যার কিছুদিন ধরে কম খাচ্ছিলেন। উনি কথা বলতেন স্বাভাবিকভাবে। তবে কখনো মানসিক অবসাদগ্রস্ত বলে আমার কিছু মনে হয়নি তাকে দেখে। কিছুটা হতাশ হয়ে পড়েছিলেন এবং কিছুদিন ধরে অনেক কম খেতে শুরু করেন”।

সম্প্রতি রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে যে আর্থিক লেনদেন এবং বাড়ির কর্মীদের নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ উঠেছে তা নাকচ করে দিয়েছেন নীরজ। তিনি বলেছেন যে,”আমাদের ওপর কোনো চাপ ছিল না। আমাদের কাছে স্যার এবং ম্যাডাম দুজনেই সমান ছিলেন। আমরা কোন ভুল করলে দুজনেই আমাকে সমানভাবে বলতেন। ম্যাডাম যদি কোন কাজ নিয়ে কিছু বলেন বা বাড়ির জন্য কোন কর্মী আনতে বলেন, তাহলে সেই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে বলেছিলেন আমাদের স্যার”।