নির্যাতিতাকে রাখি পড়ালেই জামিন মঞ্জুর, মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের রায়কে খন্ডন করলো শীর্ষ আদালত

শ্লীলতাহানির দায়ে অভিযুক্ত যদি নির্যাতিতা মহিলাকে রাখি পরিয়ে দেয়, তবে সেই শর্ত সাপেক্ষেই অভিযুক্ত জামিন পাবে! শর্তসাপেক্ষে জামিনের বিষয়ে এমনই অদ্ভুত রায় দিয়ে বসলো মধ্যপ্রদেশের হাইকোর্ট। হাইকোর্টের এই রায় অবশ্য সুপ্রিম কোর্টে ধোপে টেঁকেনি। কারণ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা এমন অদ্ভুত রায়কে এক বাক্যে খারিজ করে দিয়েছেন। যার ফলে অভিযুক্তের জামিনের আবেদনও খারিজ হয়ে গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছর প্রতিবেশী এক মহিলার উপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে এক যুবকের বিরুদ্ধে। যার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের দ্বারস্থ হন মহিলা। এরপর ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে অভিযুক্ত মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে জামিনের আবেদন করে। গত বছরের ৩০শে জুলাই মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের ইন্দোর বেঞ্চের তরফ থেকে এমন অদ্ভুত শর্তসাপেক্ষে অভিযুক্তের জামিন মঞ্জুর করা হয়।

মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়, রাখির দিন ঐ মহিলার বাড়ি গিয়ে অভিযুক্ত রাখি পড়বে। পাশাপাশি সে নিজেও ওই মহিলাকে বোন হিসেবে সারা জীবন রক্ষা করার শপথ নেবে। এর সঙ্গে ওই মহিলাকে হাতে নগদ ১১ হাজার টাকা এবং তার ছেলেকে জামা কাপড় কেনার জন্য ৫ হাজার টাকাও দিতে হবে। তবেই জামিন পাওয়া যাবে।

এই রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে ন’জন মহিলা আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ পিটিশন দাখিল করেন। গত বছরের অক্টোবর মাসেই অভিযুক্তের জামিনের রায়ে স্থগিতাদেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। এরপর গত বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রদেশ হাইকোর্টের সেই বিতর্কিত রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এএম খানুইলকারের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চে এদিন নতুন করে শুনানি দেওয়া হলো।