এতো কড়া ডায়েট ফলো করেও পেটের ফোলা কমছে না? এই টোটকা প্রয়োগ করে দেখুন

শারীরিকভাবে সম্পূর্ণ ফিট থাকতে কে না চায়! তবে চাইলেও সব সময় তা সম্ভব হয়ে ওঠে না। এর জন্য অবশ্য আমাদের ডায়েট চার্ট এবং তার সাথে লাইফস্টাইলও কিছুটা দায়ী। শারীরিকভাবে ফিট থাকার ক্ষেত্রে বর্তমান পরিস্থিতিতে সাধারণের খুব বড় একটি সমস্যা হলো ফাঁপা পেটের সমস্যা। এটি বর্তমানে প্রায় একটি সাধারণ সমস্যা হিসেবেই বিবেচিত হচ্ছে। কারণ অনেক সময় দেখা যাচ্ছে কড়া ডায়েট পালন করা সত্ত্বেও পেটের এই ফোলাভাব বাগে আনা যাচ্ছে না।

তবে সঠিক ডায়েট পালন করার পাশাপাশি যদি লাইফস্টাইলে কিছু পরিবর্তন আনা যায় তাহলেই কিন্তু এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আপনার যদি চুইংগাম চিবানোর অভ্যাস থাকে তাহলে সত্বর তা পরিত্যাগ করুন। কারণের মধ্যে চিনি, অ্যালকোহল এবং সোরবিটল ও জাইলিটলের মতো কৃত্রিম মিষ্টি থাকে যা পেটের ফোলাভাবের অন্যতম কারণ।

এছাড়াও দিনে অন্তত সাড়ে তিন লিটার জল অবশ্যই পান করুন। এতে যেমন শরীর ডিহাইড্রেশনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে, চেহারায় ঔজ্জ্বল্য আসবে, তেমনি পেটের ফোলাভাবের মতো অনেক নাছোড় রোগের হাত থেকে মুক্তি পাবেন। পেটের ফোলাভাব কমাতে পটাশিয়াম সমৃদ্ধ পাকাকলা খেতে পারেন। এতে সোডিয়ামের অতিরিক্ত প্রভাব নির্মূল হয়।

মশলাদার খাবার, দুগ্ধ এবং রাসায়নিক খাবার খাওয়ার কারণে যদি পেটের প্রদাহজনিত সমস্যা সৃষ্টি হয় এবং তা থেকে পেট ফুলে যায় তাহলে সেক্ষেত্রে অব্যর্থ ঔষধ হলো আদা। এক্ষেত্রে আদা চিবিয়ে খেতে পারেন অথবা আদা চা পান করতে পারেন। ক্লান্তি দূর হবে এবং তার সঙ্গেই পেট ফাঁপার সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। এছাড়াও পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে পেঁয়াজ, ব্রকলি, বাঁধাকপির মতো সবজি এড়িয়ে চলুন। সত্বর উপকার চাইলে স্নানের জলে রক সল্ট বা সৈন্ধব লবন মিশিয়ে স্নান করুন।