আস্ত একটি রোড রোলার চু’রি! হ’ত’বা’ক পুলিশ প্রশাসন

প্রকাশ্য রাস্তা থেকেই রোড রোলার নিয়ে চম্পট দেওয়ার চেষ্টা করলো চোরেরা! বেঙ্গালুরু শহরে একটি খেলার মাঠে দীর্ঘদিন ধরেই পড়েছিল ওই রোড রোলারটি। চোরেরা সেই রোড রোলারটিকে দুটি ক্রেনের সাহায্যে একটি ট্রাকে তুলে নিয়ে চম্পট দেয়। তাদের ফন্দি ছিল রোডরোলারটিকে ভেঙে সেখান থেকে প্রাপ্ত লোহা চড়া দামে বাজারে বিক্রি করা হবে। বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

বেঙ্গালুরু শহরের একটি খেলার মাঠে বহুদিন ধরেই রোড রোলারটিকে ফেলে রেখেছিলেন তার মালিক। চোরেরা তা লক্ষ্য করেছিল। সম্প্রতি রোড রোলারের মালিক বিশেষ প্রয়োজনে তামিলনাড়ু যান। আর ঠিক সেই সময় এই যন্ত্রটিকে নিয়ে চম্পট দেয় চোরেরা। অতবড় রোলারটিকে ট্রাকে তোলার জন্য দুটি ক্রেনের বন্দোবস্ত করা হয়েছিল।

এন বিনয় নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছে রোড রোলার চুরি করার। স্থানীয় বহু মানুষের মতো সেও দীর্ঘদিন ধরে ওই যন্ত্রটিকে মাঠের মধ্যে পড়ে থাকতে দেখে। এর পরেই সে রোড রোলারটিকে চুরি করে সেটিকে বিক্রি করে দেওয়ার পরিকল্পনা করে। স্থানীয় এক লোহার ব্যবসা ইসমাইলের সঙ্গে সে বিষয়টি নিয়ে কথা বলে। এর পরেই রোড রোলার চুরির অপারেশন শুরু হয়ে যায়।

চুরি করার পর নিজের বাড়ির সংলগ্ন একটি স্থানে যন্ত্রটিকে রেখে সেটিকে গ্যাস কাটার মারফত তিন টুকরো করে ফেলে বিনয়। লোহার ব্যবসায়ীর কাছে প্রতি কেজি ২৮ টাকা মূল্যে ৭.৮ টন লোহা সে বিক্রি করেছে বলে জানা যাচ্ছে। এরপর রোড রোলারের মালিক রোলারের খোঁজ করতে শুরু করেন এবং সেটিকে মাঠে খুঁজে না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন। অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়েছে বিনয় এবং তার সঙ্গী।